Select your Top Menu from wp menus

মাননীয় সড়ক পরিবহণ ও সেতুমন্ত্রী মহোদয় সমীপে

খান আল আমিন :: নোয়াখালী – কুমিল্লা সড়ক চার লেনে উন্নীতকরণ প্রকল্প একনেকে পাশ হওয়ার পর প্রায় দেড় বছর চলে গেছে কিন্তু এখনো লালমাই-লাকসাম অংশটির চার লেনে উন্নীতকরনের টেন্ডারই হয়নি। এদিকে এই অংশের মূল রাস্তার অবস্থা এখন খুবেই খারাপ। নোয়াখালী – ঢাকা রোডের লালমাই- লাকসাম এই ১৫ কিলোমিটার অংশই এখন গলার কাঁটা। রাস্তাটির এই অংশের অবস্থা এখন খুবেই খারাপ। পুরো লাকসাম পৌরসভার অংশ ইটের সলিং করাতে এখন এবড়োখেবড়ো হয়ে রাস্তাটি আরো খারাপ হয়ে গেছে। এই রাস্তায় চলাচলে এখন যাত্রীদের কোমর ব্যাথাসহ আতংকের কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে সড়কটি। কিন্তু যাঁদের দেখার দায়িত্ব সেই প্রকল্প পরিচালক ইঞ্জিনিয়ার মনির হোসেন পাঠানসহ উনার সহযোগী কর্তাগণ যেন জেগে জেগে ঘুমিয়েই আছেন না দেখার ভান করে।
বাস ট্রাকসহ শত শত যানবাহন চলাচল করছে অথচ উনাদের কোন চেতনাবোধ নেই এই রাস্তা নিয়ে।

শিশু, গর্ভবতী নারী ও বয়স্ক যাত্রীদের জন্য এখন নোয়াখালী-কুমিল্লা সড়কটি একটি আতংকের নাম।

অনতিবিলম্বে এই অংশের মূল সড়কটি মেরামত করে চলাচলের উপযোগী করে তোলার জোর দাবি জানাই। সেই সাথে অবিলম্বে লালমাই হতে লাকসাম দক্ষিণ বাইপাস পর্যন্ত ১৫ কিলোমিটার অংশের চারলেনে উন্নীতকরন প্রকল্পের কাজের টেন্ডার আহবান করে বাস্তব কাজ শুরুকরনের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে মাননীয় সড়ক পরিবহণ ও সেতুমন্ত্রী মহোদয়ের জোর হস্তক্ষেপ কামনা করছি ।

প্রিয় পাঠক এই লেখাটি নোয়াখালী বিভাগীয় নিউজ পেইজ থেকে নেয়া, হুবহু আমরা প্রকাশ করছি। এটা লেখকের মতামত।

Related posts