বৃহস্পতিবার, ০৫ অগাস্ট ২০২১, ০৫:১৫ পূর্বাহ্ন

অনাবাদী জমিতে বিষমুক্ত শাক-সবজি চাষ করলেন ওসি

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি :: ঠাকুরগাঁওয়ের রুহিয়া থানা চত্বরের ভিতরে অনাবাদী জমিতে বিভিন্ন জাতের শাকসবজিতে ভরে উঠেছে। অপরদিকে বিভিন্ন প্রজাতির ফুল দৃষ্টি কেড়ে নিচ্ছে দর্শানার্থীদের। থানার এমন চিত্র দেখে চোখ জুড়িয়ে যাবে যে কারও!রুহিয়া থানা নতুন ভবনে বালুময় পরিত্যক্ত জমিতে যেখানে ছিল আগাছা, লতাপাতা আর বন-জঙ্গল। তবে বর্তমানে এখানে শাক সবজি চাষ করে চাহিদা মেটাচ্ছেন থানার পুলিশ সদস্যরা।

সরেজমিনে ঘুরে দেখা যায়, থানার পরিত্যক্ত জমি পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন করে এখানে রসুন, পেঁয়াজ, মরিচ, ফুলকপি, বাধাকপি, স্কোয়াশ, গাজর,মুলা, লাউ, বেগুন, মিষ্টি কুমড়া, পালংশাক, লালশাক ও ধনেপাতার চাষ করা হয়েছে। সেই সাথে লক্ষ করা যায় বিভিন্ন প্রজাতির ফল ও ফুলের বাগান। জানা যায়, পেশাগত দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি অবসর সময়ে থানার অফিসার ইনচার্জ চিত্ত রঞ্জন রায় তার পুলিশ সদস্যদের সঙ্গে নিয়ে গড়ে তুলেছেন বিশাল এই সবজি, বিভিন্ন ধরনের ফুলের বাগান এবং ফলের মধ্যে বিভিন্ন প্রজাতির আম গাছ, কাঠাল, লিচু, পেয়ারা, নাড়িকেল, কামরাঙা, জলপাই, লেবু,চালতাসহ বিভিন্ন ফলের বাগান।

উপ-পরিদর্শক(এস আই) আবু বকর সিদ্দিক জানান, আমরা অফিসার ইনচার্জের নেতৃত্বে থানার সকল পুলিশ সদস্যরা অবসর সময়ে ফুল বাগান ও সবজি ক্ষেত পরিচর্যা করি। কীটনাশক মুক্ত সতেজ এসব শাক-সবজি দিয়ে থানার পুলিশ সদস্যরা চাহিদা মেটাচ্ছেন।

রুহিয়ার জুয়েল রানা,আরফান আলী ও রাসেল ইসলাম বলেন, রুহিয়া থানা পুলিশের এই উদ্যোগ আমাদের যুব সমাজকে অনুপ্রেরণা জাগিয়েছে। তাই আমরাও বাসার আসেপাশে বিভিন্ন সবজি চাষের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছি।এ ব্যাপারে রুহিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি) চিত্ত রঞ্জন রায় বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী করোনাকালীন সময়ে নির্দেশনা দিয়েছেন, দেশের কোনো জায়গা পরিত্যক্ত থাকতে পারবে না। যেহেতু রুহিয়া থানায় মোট এক একর সম্পত্তির মধ্যে প্রায় ৩৫ শতক অনাবাদি পরিত্যক্ত।

তাই এই পরিত্যক্ত জমিতে পুলিশ সদস্যগণ কঠোর শ্রম দিয়ে জৈব সার ব্যবহার করে আবাদি করে তুলে। অবসর সময়ে সকল পুলিশ সদস্যদের ঐক্য প্রচেষ্টায় বিভিন্ন ধরনের শাক-সবজি চাষাবাদ সহ প্রায় ১৫(পনের) প্রজাতির ফুলের গাছ দিয়ে বাগান তৈরি করা হয়েছে। তবে আমাদের এ চাষাবাদ অব্যাহত থাকবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত © ২০২০ বাঙলার জাগরণ
কারিগরি সহযোগীতায় :বাংলা থিমস| ক্রিয়েটিভ জোন আইটি