রবিবার, ০১ অগাস্ট ২০২১, ১০:৫০ পূর্বাহ্ন

অভয়নগরে কঠোর লকডাউনে সাধারণ মানুষ চরম দূরাবস্থায়

যশোর প্রতিনিধি :: অভয়নগরে কঠোর লকডাউনে সাধারণ মানুষ চরম দূরাবস্থায় জীবন যাপন করছে। প্রশাসন লকডাউন পালনে কঠোর অবস্থানে থাকায় সাধারণ মানুষের জীবন জীবিকায় বিরুপ প্রভাব পড়ছে। করোনার শুরুতে সরকারীভাবে ত্রাণ দেওয়া হলেও বর্তমানে তার কিছুই দেখা যাচ্ছেনা। ক্ষুদ্র ও মাঝারী ব্যবসায়ীরা ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খুলতে না পেরে নানামুখী ক্ষতির সন্মুখীন হচ্ছে।

যেমন তারা যে সকল মোকাম থেকে বাকীতে মালামাল কিনত সে সকল মহাজনের নিয়মিত তাগাদাসহ এনজিওগুলোর কিস্তির চাপে দিশেহারা। সরকার কঠোর লকডাউন দিলেও এনজিওগুলোর কিস্তি আদায় চলছে। এর ফলে দরিদ্র থেকে মধ্যবিত্ত শ্রেণী অসহায়
জীবন যাপন করছে।

এর সাথে যোগ হয়েছে পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২’র স্বেচ্ছাচারিতা। লকডাউনেও তারা গ্রাহকদের সাথে র্দূব্যবহারসহ সংযোগ বিচ্ছিন্ন অব্যহত রেখেছে। ফলে বিদ্যুৎ বিল প্রদান তাদের জন্য মড়ার উপর খাড়ার ঘাঁ হয়ে দাড়িয়েছে। সাধারণ মানুষের উপার্জন ব্যহত হওয়ায় বিদ্যুৎ বিল বকেয়া হচ্ছে এবং কর্তৃপক্ষ কোন প্রকার অনুনয় বিনয় উপেক্ষা করে ইচ্ছামত সংযোগ বিচ্ছিন্ন করছে।

নিয়মিত উপার্জন বন্ধ হওয়ার ফলে সমগ্র উপজেলায় ভিক্ষুক বেড়েছে। রাস্তাঘাটে তাদের দৌরাত্বে চলাচল কঠিন হয়ে পড়েছে। এ সকল ভিক্ষুকদের মধ্যে বয়স্ক, পঙ্গু ও শিশু রয়েছে। গরীবের বন্ধু, জনদরদী পরিচয় দেওয়া নেতা-কর্মীদের বিভিন্ন সামাজিক মাধ্যম ছাড়া বাস্তবে কোন কার্যক্রমে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছেনা।

বাজারে প্রতিটি নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যের উর্দ্ধ মূল্যের কারণে মানুষ আরও বেশি বিপাকে পড়েছে। সাধারণ মানুষের দাবী লকডাউনে জাতীয় পরিচয় পত্র ব্যবহারের মাধ্যমে তাদের প্রত্যেককে নূন্যতম ত্রাণের ব্যবস্থা করা হোক।

নিউজটি শেয়ার করুন

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত © ২০২০ বাঙলার জাগরণ
কারিগরি সহযোগীতায় :বাংলা থিমস| ক্রিয়েটিভ জোন আইটি