বৃহস্পতিবার, ১৯ মে ২০২২, ০৩:২৬ অপরাহ্ন

পদ্মা সেতুর শেষ স্লাব বসছে আজ, পূর্ণাঙ্গ রূপ পাবে সড়কপথ

মুন্সিগঞ্জ প্রতিনিধি :: ধাপে এগিয়ে চলেছে স্বপ্নের পদ্মা সেতুর নির্মাণকাজ। এবার এগিয়ে গেলো আরও একধাপ। সেতুর রেলওয়ে স্লাব বাসানোর পর এবার শেষ হতে হয়েছে রোডওয়ে স্লাব বসানোর কাজও।

ফলে ছয় দশমিক ১৫ কিলোমিটার সেতুতে পূর্ণাঙ্গ রূপ পেয়েছে সড়কপথ। সেতুর মোট দুই হাজার ৯১৭টি রোডওয়ে স্লাব বসানো হয়েছে । ধাপে এগিয়ে চলেছে স্বপ্নের পদ্মা সেতুর নির্মাণকাজ। এবার এগিয়ে গেলো আরও একধাপ। সেতুর রেলওয়ে স্লাব বাসানোর পর এবার শেষ হয়েছে রোডওয়ে স্লাব বসানোর কাজও।

অর্থাৎ আজ সোমবার সকাল ১০ টা ১২ মিনিটে শেষ হয় পদ্মা সেতুর রোডওয়ে স্লাব বসানোর কাজ। সোমবার (২৩ আগস্ট) সকাল সোয়া ১০টার দিকে পদ্মা সেতু প্রকল্পের উপ-সহকারী প্রকৌশলী মো. হুমায়ুন কবির ম এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, ‘শেষ তিনটি রোডওয়ে স্লাব বসানোর কাজ বাকি ছিলো। সেতুর ১২ ও ১৩নং পিলারের স্প্যানে শেষ তিনটি রোডওয়ে স্লাব বসানো হয়েছে । রাতের মধ্যে দুটি স্লাব বসানো হয়। সর্বশেষ একটি রোডওয়ে স্লাব সোমবার সকালে বসানো হয়। সকাল ১০ টা ১২ মিনিটের মধ্যে শেষ রোডওয়ে স্লাবটি বসানোর হয়েছে। ফলে সকল রোডওয়ে স্লাব বসানোর কাজ শেষ হয়েছে।

এর আগে চলতি বছরের ২০ জুন শেষ হয়েছিল দ্বিতল সেতুর রেলওয়ে স্লাব বসানোর কাজ।

সেতু প্রকল্পের প্রকৌশলীরা জানিয়েছেন, চলতি বছরের জুলাই মাস পর্যন্ত সেতু প্রকল্পের সার্বিক কাজ এগিয়েছে ৮৭ দশমিক ২৫ শতাংশ। আর মূল সেতুর কাজের অগ্রগতি ৯৪ দশমিক ২৫ শতাংশ। অর্থাৎ মূল সেতুর কাজের আর বাকি মাত্র ৫ দশমিক ৭৫ শতাংশ।

২০১৪ সালের ডিসেম্বরে পদ্মা সেতুর নির্মাণকাজ শুরু হয়। ২০১৭ সালের ৩০ সেপ্টেম্বর ৩৭ ও ৩৮ নম্বর খুঁটিতে প্রথম স্প্যান বসানোর মধ্য দিয়ে দৃশ্যমান হয় পদ্মা সেতু। এরপর একে একে ৪২টি পিলারে ১৫০ মিটার দৈর্ঘ্যের ৪১টি স্প্যান বসানো হয়।

২০২০ সালের ১০ ডিসেম্বর ছয় দশমিক ১৫ কিলোমিটার দীর্ঘ পদ্মা সেতু পুরোপুরি দৃশ্যমান হয়েছিল। একইসঙ্গে চলতে থাকে রোডওয়ে ও রেলওয়ে স্ল্যাব বসানোসহ অন্যান্য কাজ। ২০২২ সালের জুন মাসের মধ্যেই পদ্মা সেতু যান চলাচলের জন্য উন্মুক্ত করে দেয়ার কথা রয়েছে।যার মধ্যে রাতেই বসানো হয়েছে দুটি স্লাব। আর সোমবার (২৩ আগস্ট) সর্বশেষ স্লাব বসানোর মধ্যে দিয়ে সম্পন্ন হলো।

নিউজটি শেয়ার করুন

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত © ২০২০ বাঙলার জাগরণ
কারিগরি সহযোগীতায় :বাংলা থিমস| ক্রিয়েটিভ জোন আইটি