বৃহস্পতিবার, ১৮ অগাস্ট ২০২২, ০২:৩৯ অপরাহ্ন

শিরোনাম
রেল লাইনে পাথর নেই, মারাত্নক ঝুকি নিয়ে চলাচল করছে ট্রেন ২০০৫ সালের ১৭ আগস্ট সিরিজ বোমা হামলার প্রতিবাদে বিহ্মোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয় দেশে পরিবেশ বান্ধব কৃষি ও শিল্প প্রতিষ্ঠান স্থাপনের আহবান বোপমা সভাপতির হাতীবান্ধায় প্রতিবন্ধী কিশোরীকে ধর্ষণ মামলার মূল আসামী শাহিন গ্রেফতার সিরিজ বোমা হামলার প্রতিবাদে বরিশালে আ.লীগের বিক্ষোভ মিছিল খেলাপি বৃদ্ধির শীর্ষে ২০ ব্যাংক বিমানবন্দরে ভক্তদের উদ্দেশ্যে যা বললেন শাকিব খান বরিশাল শেবাচিমে অধ্যক্ষের কার্যালয় ঘেরাও করে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ তেলের দাম বাড়ায় ব্যবসায়ীরা সুযোগ নিচ্ছেন: বাণিজ্যমন্ত্রী বামদের হরতালে বিএনপির সমর্থন

আ’লীগের ব্যয়ের চেয়ে আয় বেশি প্রায় ১৫ কোটি

নিউজ ডেস্ক :: ২০২০ সালের তুলনায় ২০২১ সালে আওয়ামী লীগের আয় বেড়েছে ১০ কোটি ৯০ লাখের বেশি টাকা। পাশাপাশি এই সময়ের মধ্যে ব্যয় কমেছে ৩ কোটি ৬৪ লাখ ৩০ হাজার টাকা। আর দলটির ব্যাংকে জমা আছে ৭০ কোটি ৪৩ লাখ ৭০ হাজার ১৬৬ টাকা।

২০২১ সালে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের আয় ২১ কোটি ২৩ লাখ ৪৬ হাজার ১০৬ টাকা ও ব্যয় হয়েছে ৬ কোটি ৩০ লাখ ১৯ হাজার ৮৫২ টাকা। আয়ের বড় খাত মনোনয়নপত্র ও প্রাথমিক সদস্যফর্ম বিক্রি এবং সেচ্ছায় অনুদান।

রোববার নির্বাচন কমিশন (ইসি) জমা দেওয়া দলটির আয়-ব্যয়ের হিসেব বিশ্লেষণ করে এসব তথ্য পাওয়া গেছে।

রাজধানীর আগারগাঁওয়ে নির্বাচন কমিশন ভবনে আওয়ামী লীগের কোষাধ্যাক্ষ এইচ এন আশিকুর রহমানের নেতৃত্বে ইসি সচিব হুমায়ুন কবীর খোন্দকারের কাছে দলটির আয়-ব্যয়ের হিসাব জমা দেওয়া হয়।

প্রতিনিধি দলে ছিলেন প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আবদুস সোবহান গোলাপ, দফতর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বুড়ুয়া, উপ দফতর সম্পাদক সায়েম খান এবং অর্থ ও পরিকল্পনা বিষয়ক উপ-কমিটির সদস্য জাফরুল শাহরিয়ার জুয়েল।

আশিকুর রহমান বলেন, একটি স্বনামধন্য নিরীক্ষা প্রতিষ্ঠান দিয়ে ২০২১ পঞ্জিকা বছরে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের নিরীক্ষিত হিসাব প্রতিবেদন নির্বাচন কমিশনে জমা দেওয়া হয়েছে। এই বছর দলের মোট আয় ২১ কোটি ২৩ লাখ ৪৬ হাজার ১০৬ টাকা।

আয় বৃদ্ধির কারণ প্রসঙ্গে আশিকুর রহমান বলেন, মনোনয়ন ফরম বিক্রি ও প্রাথমিক সদস্য সংগ্রহ ফরম বিক্রি করে দল এই অর্থ আয় করেছে।

তিনি জানান, ২০২০ পঞ্জিকা বছরে মোট আয় ছিল ১০ কোটি ৩৩ লাখ ৪৩ হাজার ৫৩৩ টাকা। সেই তুলনায় ২০২১ সালে ১০ কোটি ৯০ লাখ ২ হাজার ৫৭৩ টাকা বেশি আয় হয়েছে।

সেনা সমর্থিত তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সময় ২০০৮ সাল থেকে রাজনৈতিক দলগুলোর জন্য নিবন্ধন প্রথা চালু করে ইসি। গণপ্রতিনিধিত্ব আদেশ মেনে প্রতিবছর ৩১ জুলাইয়ের মধ্যে নিবন্ধিত রাজনৈতিক দলগুলোর আগের পঞ্জিকা বছরের ‘অডিট রিপোর্ট’ জমা দেওয়ার আইনি বাধ্যবাধকতা রয়েছে।

মূলত রাজনৈতিক দলগুলোর কোন খাত থেকে কত টাকা আয় হয়েছে, কত টাকা ব্যয় হয়েছে, বিল-ভাউচারসহ তার পূর্ণাঙ্গ তথ্য কমিশনের নির্ধারিত একটি ছকে জমা দিতে হয়। যা রেজিস্টার্ড চার্টার্ড অ্যাকাউন্টিং ফার্মের মাধ্যমে নিরীক্ষা করার আইনি বাধ্যবাধকতা রয়েছে। পরপর তিন বছর কমিশনে আয়-ব্যয়ের প্রতিবেদন দিতে ব্যর্থ হলে দলের নিবন্ধন বাতিলের এখতিয়ার রয়েছে ইসির।

২০২০ সালে আওয়ামী লীগের আয় হয়েছে ১০ কোটি ৩৩ লাখ ৪৩ হাজার ৫৩৩ টাকা, যা ২০১৯ সালের আয়ের চেয়ে ১০ কোটি ৬৮ লাখ ৯৭ হাজার ৭৯৭টা কম। ২০১৯ সালে দলটি আয় করেছিল ২১ কোটি দুই লাখ ৪১ হাজার ৩৩০ টাকা।

নিউজটি শেয়ার করুন

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত © ২০২০ বাঙলার জাগরণ
কারিগরি সহযোগীতায় :বাংলা থিমস| ক্রিয়েটিভ জোন আইটি