বৃহস্পতিবার, ১৮ অগাস্ট ২০২২, ০২:৪৭ অপরাহ্ন

শিরোনাম
রেল লাইনে পাথর নেই, মারাত্নক ঝুকি নিয়ে চলাচল করছে ট্রেন ২০০৫ সালের ১৭ আগস্ট সিরিজ বোমা হামলার প্রতিবাদে বিহ্মোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয় দেশে পরিবেশ বান্ধব কৃষি ও শিল্প প্রতিষ্ঠান স্থাপনের আহবান বোপমা সভাপতির হাতীবান্ধায় প্রতিবন্ধী কিশোরীকে ধর্ষণ মামলার মূল আসামী শাহিন গ্রেফতার সিরিজ বোমা হামলার প্রতিবাদে বরিশালে আ.লীগের বিক্ষোভ মিছিল খেলাপি বৃদ্ধির শীর্ষে ২০ ব্যাংক বিমানবন্দরে ভক্তদের উদ্দেশ্যে যা বললেন শাকিব খান বরিশাল শেবাচিমে অধ্যক্ষের কার্যালয় ঘেরাও করে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ তেলের দাম বাড়ায় ব্যবসায়ীরা সুযোগ নিচ্ছেন: বাণিজ্যমন্ত্রী বামদের হরতালে বিএনপির সমর্থন

বিবার্তা মুক্তিযুদ্ধ ও মুক্তবুদ্ধির প্রশ্নে আপসহীন

নিউজ ডেস্ক :: আজকের দুনিয়া তথ্যপ্রযুক্তির। এই যুগের সবকিছুই অনলাইন কেন্দ্রিক। প্রায় দেড় দশক আগে বাংলাদেশের গণমাধ্যমেও লেগেছে ডিজিটাল হাওয়া। কাজেই মানুষ এখন অনলাইন গণমাধ্যমের দিকে ঝুঁকছেন। কারণ অনলাইন গণমাধ্যমে তাৎক্ষণিক সব সংবাদ পাওয়া যাচ্ছে, যা ছাপা পত্রিকায় পরের দিন আসছে। তাই অনলাইন গণমাধ্যমগুলো এখন ব্যাপক জনপ্রিয়। এমনই একটি অনলাইন নিউজ পোর্টাল বিবার্তা২৪ডটনেট।

পত্রিকাটি হাঁটি হাঁটি পা পা করে দশক পেরিয়ে এগারোতে পা দিয়েছে। গণমাধ্যমটি বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ পরিবেশন, সৃজনশীলতা, মানবিকতা, সাহসিকতার সমন্বয়ে যেভাবে এগিয়ে যাচ্ছে, সেই যাত্রা যেন বুকটান চলমান থাকে। তাহলে যতই ক্রান্তিকাল আসুক, সংকট আসুক- মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের মানুষের একটি প্রিয় প্রাঙ্গণ এবং আশ্রয়ে পরিণত হবে বিবার্তা। গণমাধ্যমটি মুক্তিযুদ্ধ ও মুক্তবুদ্ধির প্রশ্নে আপসহীন ভূমিকা রাখছে। আমরা আশা করছি এই ধারা অব্যাহত থাকবে।

মঙ্গলবার (২ আগস্ট) সন্ধ্যায় বিবার্তা২৪ডটনেটের দশক পেরিয়ে ১১তে পদার্পণ উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা অনুষ্ঠানে অংশ নিয়ে এমন প্রত্যাশা ব্যক্ত করেছেন বিশিষ্টজনেরা। রাজধানীর বাংলামোটরস্থ পদ্মা লাইফ টাওয়ারে প্রতিষ্ঠানটির কার্যালয়ে এ আয়োজন কর হয়।

বিবার্তার সাফল্য কামনা করে আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুবউল আলম হানিফ বলেছেন, কষ্টে অর্জিত স্বাধীনতা সমুন্নত রাখতে অতীতের মতো ভবিষ্যতেও বিবার্তা২৪ডটনেট গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। সংবাদপত্র সমাজের দর্পণ। জাতি গঠনে সংবাদপত্রের অপরিসীম ভূমিকা রয়েছে। গণমাধ্যমে সরকারের দুর্বলতা উঠে আসে। এর পাশাপাশি জাতি সরকারের সফলতার কথাও জানতে পারে। আমরা মনে করি, গণমাধ্যমের বস্তুনিষ্ঠ দায়িত্বশীলতা প্রয়োজন। সেই দায়িত্ব বিবার্তা গত দশক বছর ধরে পালন করে আসছে।

তিনি আরও বলেন, মুক্তিযুদ্ধের মূল্যবোধকে সামনে রেখে শেখ হাসিনা দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন। কিন্তু স্বাধীনতার বিপক্ষ শক্তি এখনো সোচ্চার। তারা দেশে-বিদেশে ষড়যন্ত্র করছে। দেশের বাইরে লন্ডন, আমেরিকা থেকে ষড়যন্ত্র হচ্ছে। দেশকে এগিয়ে যেতে হলে ষড়যন্ত্র মোকাবিলায় গণমাধ্যমকে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে হবে।

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মশিউর রহমান বলেন, আমি মনে করি, বিবার্তা সৃজনশীলতা, লেখনি, মানবিকতা, সাহসিকতার সমন্বয় করে যেভাবে এগিয়ে যাচ্ছে সেই পথে কেউ যেন বাধা হতে না পারে। তাহলে যতই ক্রান্তিকাল আসুক, সংকট আসুক-মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের মানুষের একটি প্রিয় প্রাঙ্গণ এবং আশ্রয়ে পরিণত হবে বিবার্তা। আর সেটির মধ্য দিয়ে আগাতে পারলে আমরা একটি ভিন্নধর্মী সৃজনশীল সাংবাদিকতার পথে হাঁটবো। আগস্ট মাস শোকের মাস। শোককে শক্তিতে পরিণত করতে আমাদের প্রতিজ্ঞা নিতে হবে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ড. সাদেকা হালিম বলেন, বিবার্তার জন্মলগ্ন থেকে আমি এর সঙ্গে সংশ্লিষ্ট। অনলাইন এই গণমাধ্যমটির সম্পাদক বাণী ইয়াসমিন হাসিকে আমি ছাত্রজীবন থেকেই চিনতাম। তিনি সাহসী একজন নারী। মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে মনেপ্রাণে ধারণ করেন এবং সে অনুযায়ী কাজ করতে সচেষ্ট থাকেন। তার সম্পাদিত বিবার্তা২৪ডটনেট কাউকে খুশি করার জন্য নিউজ করে না বরং তথ্য উপাত্তের ভিত্তিতে গণমাধ্যমটি সংবাদ প্রকাশ করে আসছে। আমি এর উত্তরোত্তর সাফল্য কামনা কর

বিবার্তার সম্পাদক ও সংবাদকর্মীদের অভিনন্দন জানিয়ে বিএনপির প্রচার সম্পাদক ও মিডিয়া সেলের সদস্য সচিব শহীদ উদ্দিন চৌধুরী অ্যানি বলেন, এদেশে এখন মতপ্রতাশের স্বাধীনতা অনুপস্থিত। বিবার্তা খুব সাহসিকতায় এই পরিস্থিতি মোকাবিলা করবে বলে আমি আশা করি। আর আমরা ভবিষ্যতে সুযোগ পেলে আপনাদের পাশে থাকবো।

বীর মুক্তিযোদ্ধা মেজর (অব.) মফিজুল হক সরকার বলেন, বিবার্তা সত্যের কথা বলে। ন্যায়ের কথা বলে। বিবার্তা মুক্তিযুদ্ধের কথা বলে। বিবার্তার অগ্রযাত্রা আরও সুন্দর হোক। আরও প্রাণময় হোক। বিবার্তা এগিয়ে যাক। আগামীর জন্য অনেক শুভ কামনা।

জাগরণ টিভির প্রধান সম্পাদক এফএম শাহীন ও বিবার্তা২৪ডটনেটের সাহিত্য সম্পাদক সামিনা বিপাশার সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিশ্ববিদ্যালয়- কিশোরগঞ্জের উপাচার্য অধ্যাপক ড. জেড এম পারভেজ সাজ্জাদ, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ডিজিটাল ইউনিভার্সিটির সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক ড. মুনাজ আহমেদ নূর, আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাড. আফজাল হোসেন, আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার মো. আবদুস সবুর, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের বিশেষ সহকারী গুলশাহানা ঊর্মি, গৌরব’৭১ এর সভাপতি এসএম মনিরুল ইসলাম মনি, মওলানা দেলাওয়ার হোসেন সাঈফি, আরিফা জেসমিন কনিকা প্রমুখ।

নিউজটি শেয়ার করুন

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত © ২০২০ বাঙলার জাগরণ
কারিগরি সহযোগীতায় :বাংলা থিমস| ক্রিয়েটিভ জোন আইটি