সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ০৯:৩১ অপরাহ্ন

শিরোনাম
ক্রীড়াবিদরা দেশের জন্য সম্মান বয়ে আনছে- ধর্মমন্ত্রী উজিরপুরে সৎসঙ্গ ফাউন্ডেশনের সেমিনার অনুষ্ঠিত শিবালয়ে গ্রাম-বাংলার ঐতিহ্যবাহী লাঠিবাড়ি খেলা অনুষ্ঠিত লঞ্চের দড়ি ছিঁড়ে ৫ জনের মৃত্যু : আসামিদের তিন দিনের রিমান্ড ঈদের দিনে সদরঘাটে দুর্ঘটনায় ঝরল ৫ প্রাণ সৌদির সাথে মিল রেখে নোয়াখালীর ৪ গ্রামে ঈদ উদযাপন নোয়াখালীতে দুর্বৃত্তরা ঘর আগুনে পুড়ে দিয়েছে, ১০ লক্ষ টাকার ক্ষয়ক্ষতি সুবর্ণচরে মানব কল্যাণ সংস্থার উদ্যোগে হতদরিদ্র ও অসহায়দের মাঝে ঈদ সামগ্রী বিতরণ  ঢাকা আরিচা মহাসড়কের মসুরিয়ায় নামে এক অজ্ঞাত ব্যাক্তি সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত চাটখিলে ইউপি চেয়ারম্যান ও মেম্বারদের মাঝে ঈদ উপহার বিতরণ

সুবর্ণচরে খামারিদের মাঝে ব্যবসা পরিকল্পনা প্রণয়ন বিষয়ক প্রশিক্ষণ

মোঃ আবদুল আজিজ, উপজেলা প্রতিনিধি, (নোয়াখালী) সুবর্ণচর : সুবর্ণচর উপজেলা প্রাণিসম্পদ ও ডেইরি উন্নয়ন প্রকল্প (এলডিডিপি) এর আওতায় পিজি ও নন পিজি সদস্যদের মাঝে দুই দিনব্যাপী ব্যবসা পরিকল্পনা প্রণয়ন বিষয়ক প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত হয়।

মঙ্গলবার ( ২৭ ফ্রেবুয়ারি) সকালবেলা উপজেলা প্রাণিসম্পদ দপ্তর ও ভেটেরিনারি হাসপাতালের সহযোগিতায় অত্র দপ্তরের হলরুমে প্রাণীসম্পদ কর্মকর্তা ডাঃ ফখরুল ইসলামের সভাপতিত্বে খামারিদের জন্য ব্যবসা পরিকল্পনা প্রণয়ন বিষয়ক প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

উক্ত প্রশিক্ষণে ট্রেইনার হিসেবে বক্তব্য প্রধান করেন চট্টগ্রাম বিভাগীয় ডাইরেক্টর, নোয়াখালী জেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা, সুবর্ণচর উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা, প্রাণিসম্পদ সম্প্রসারণ কর্মকর্তা। অনুষ্ঠানে আলোচক অনেকে নানা প্রশ্নের উত্তর দিয়েছেন নতুন ও পুরাতন খামারিদের কর্মকর্তারা।

উপজেলা প্রাণিসম্পদ অফিসার ডাঃ মোঃ ফখরুল ইসলাম জানান, এই প্রশিক্ষণ প্রাপ্তির ফলে প্রান্তিক খামারিরা আধুনিক পদ্ধতিতে প্রাণি পালন, প্রাণিজাত

পন্য উৎপাদন এবং এসব পন্য বিপণন, বাজারজাত করণ, প্রকৃত জ্ঞান অর্জন করে লাভবান হতে পারবে।

তিনি আরো জানান, ব্যবসা সফল হতে হলে চাহিদা ও যোগান, সঠিক পরিকল্পনা, সময়ের সঠিক বিভাজন ও প্রয়োগ, প্রশিক্ষণ, বিপণন বাড়ানো,বাজারের নিজ পণ্য,সেবা সম্পর্কে তথ্য সংগ্রহ,কাঁচামালের অপচয়রোধ ও সঠিক নিয়ন্ত্রণ,উৎপাদন বাড়ানো, উৎপাদন ব্যবস্থা উন্নয়ন ও আধুনিক কলাকৌশলের প্রয়োগের সাথে তালমিলিয়ে চলতে হবে খামারিদের।

রোগবালাই দেখা দিলে প্রয়োজনে উন্নত চিকিৎসা সেবা নিশ্চিতকরণ জোর দিতে হবে। যার ফলে লোকসানের ঝুঁকির সম্মুখীন হতে হবে না খামারিদের সঠিক সময়ে যোগাযোগ রক্ষা করলে। নিয়মিত ঔষুধ প্রয়োগের মাধ্যমে রোগ বালাই হতে মুক্ত থাকবে প্রাণী সম্পদ।

ফলে সমাজে নতুন কর্মসংস্থান সৃষ্টির মাধ্যমে বেকারত্ব ও দারিদ্র্য দূরীকরণ সহজ হবে।প্রাণিজাত পুষ্টি আমিষের প্রাপ্ততা সহজলভ্য হবে এবং মেধাবী জাতি গঠনে প্রাণিসম্পদ সেক্টরে বর্তমান সরকারের হাতে নেওয়া মহৎ সুফল এসব প্রকল্পে সুবিধা জনসাধারণ ভোগ করবেন।

উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়ন থেকে যাচাই-বাছাই করে ৪০ জন নিজস্ব পারিবারিক খামারি গৃহিণী,কৃষক, যুবক,যুবরাণী প্রশিক্ষণে অংশগ্রহণ করেছেন। প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের এমন প্রশিক্ষণ পেয়ে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাকে ধন্যবাদ জানান প্রশিক্ষণার্থীরা।


© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত © ২০২০ বাঙলার জাগরণ
কারিগরি সহযোগিতায়: