রবিবার, ১৯ মে ২০২৪, ০৪:০১ পূর্বাহ্ন

দেশের স্বার্থ বিরোধী কাজের সাথে যারাই জড়িত, তারাই মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বিরোধী – আনু মুহাম্মদ

ফুলবাড়ী (দিনাজপুর) প্রতিনিধি : দিনাজপুরের ফুলবাড়ী উপজেলা শাখা তেল গ্যাস খনিজ সম্পদ ও বিদ্যুৎ বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটির প্রয়াত নেতাকর্মীদের স্মরণে শনিবার (২০ এপ্রিল) স্মারণ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সকাল ১০টায় ফুলবাড়ীস্থ জেলা পরিষদ ডাকবাংলো চত্বরে আয়োজিত স্মরণ সভায় সভাপতিত্ব করেন ফুলবাড়ী উপজেলা শাখা তেল গ্যাস খনিজ সম্পদ ও বিদ্যুৎ বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটির আহবায়ক সৈয়দ সাইফুল ইসলাম জুয়েল।

ফুলবাড়ী উপজেলা শাখা তেল গ্যাস খনিজ সম্পদ ও বিদ্যুৎ বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটির সদস্য মোতালেব হোসেন পাপ্পু’র সঞ্চালনায় আয়োজিত স্মরণ সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন সংগঠনের কেন্দ্রীয় সদস্য সচিব, অর্থনীতিবিদ অধ্যাপক আনু মুহাম্মদ।

এছাড়াও বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশের বিপ্লবী কমিউনিস্ট লীগের কেন্দ্রীয় সম্পাদক মন্ডলীর সদস্য মোশাররফ হোসেন নান্নু, তেল গ্যাস জাতীয় কমিটির দিনাজপুর জেলা শাখার আহ্বায়ক ও সিপিবির কেন্দ্রীয় সদস্য আলতাফ হোসাইন, সিপিবির জেলা সভাপতি অ্যাড. মেহেরুল ইসলাম, বাংলাদেশের বিপ্লবী কমিউনিস্ট লীগের দিনাজপুর জেলা সম্পাদক আকতার আজিজ, বাংলাদেশের সাম্যবাদী আন্দোলনের জেলা সমন্বয়ক মনিরুজ্জামান মুনির, ফুলবাড়ী উপজেলা শাখা তেল গ্যাস জাতীয় কমিটির সদস্য সচিব ও সিপিবি’র ফুলবাড়ী উপজেলা শাখার সভাপতি জয় প্রকাশ গুপ্ত, মো. হামিদুল হক, সিপিবি’র ফুলবাড়ী উপজেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক এসএম নূরুজ্জামান জামান, ওয়ার্কার্স পার্টি’র ফুলবাড়ী উপজেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক শফিকুল ইসলাম সিকদার, বাংলাদেশের বিপ্লবী কমিউনিস্ট লীগের ফুলবাড়ী উপজেলা শাখার সম্পাদক সঞ্জিত প্রসাদ গুপ্ত, জাতীয় গণফ্রন্টের কমল চক্রবর্তী, গণসংহতি আন্দোলনের নাজার আহম্মেদ, ফুলবাড়ী উপজেলা শাখা তেল গ্যাস জাতীয় কমিটির সাবেক সদস্য সচিব আব্দুল মজিদ চৌধুরী, ফুলবাড়ী রিকশা-ভ্যান শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি শামিউল ইসলাম চৌধুরী, উপজেলা শাখা তেল গ্যাস জাতীয় কমিটির সদস্য সহকারী অধ্যাপক জারজিস আহম্মেদ, মো. আব্দুল কাইয়ুম, সহকারী অধ্যাপক গোরাম কিবরিয়া প্রমুখ।

প্রয়াত সদস্যদের পরিবারের পক্ষ থেকে বক্তব্য রাখেন প্রয়াত বীর মুক্তিযোদ্ধা এসএমএ আব্দুল খালেকের বড় ছেলে নিজাম উদ্দিন পলাশ, ইন্দ্রজিৎ দাস শিবু’র সহধর্মিণী শ্রীমতি পপি রানী দাস, আকতারুল সরকার বকুলের সহধর্মিণী হাসিনা বেগম, রবীন্দ্রনাথ সরেনের সহধর্মিণী বাসন্তী মুর্মু ও দীপচাঁদ গুপ্তের সহধর্মিণী যুঁথি গুপ্তা।

সভার শুরুতে বিভিন্ন সময়ে প্রয়াত ফুলবাড়ী উপজেলা শাখা তেল গ্যাস খনিজ সম্পদ ও বিদ্যুৎ বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটির অন্যতম সদস্য ইন্দ্রজিৎ দাস শিবু, আকতারুল সরকার বকুল, আব্দুল জব্বার, দীপ চাঁদ গুপ্ত, বীর মুক্তিযোদ্ধা এসএমএ খালেক, আদিবাসী নেতা রবীন্দ্রনাথ সরেন, আরিফুল ইসলাম এর আত্মার মাগফিরাত ও শান্তি কামনাসহ এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে অধ্যাপক আনু মুহাম্মদ বলেন, মুক্তিযুদ্ধ ১৯৭১ সালে শেষ হয়নি। আমরা এখনো পুর্ণ স্বাধীনতা অর্জন করতে পারিনি। এখনো আমরা যুদ্ধ করে যাচ্ছি। চিকিৎসায়, সড়কে, আর্থিক, শিক্ষায় সবক্ষেত্রে এখনো আমাদের স্বাধীনতা আসেনি। এসবের জন্য এখনো আমাদেরকে যুদ্ধ করে যেতে হচ্ছে। মুক্তিযুদ্ধের সময় আমাদের অনেকে সামনে থেকে যুদ্ধ করেছেন, আবার কেউ লিখুনির মাধ্যমে, মা-বোনেরা রান্না করে খাবার দিয়ে, চিকিৎসা সেবা দিয়ে যুদ্ধকে এগিয়ে নিয়েছেন। সামনে পিছনে সবার ভুমিকা একরকম থাকে না। কিন্তু সবার ভুমিকা গুরুত্বপুর্ণ। একজন পিছন থেকে সংগঠিত করছেন, কেউ কথা বলছেন, কেউ অর্থ সংগ্রহ করেছেন, কতো রকম কাজ থাকে একটা আন্দোলন তৈরি করতে। সে সময় আমরা খেয়াল করি না। আসে-পাশে সামনে আমরা যাদের দেখি তাদের ভুমিকা আমরা স্বরণ করি। ফুলবাড়ী খনি বিরোধী আন্দোলনে মুক্তিযোদ্ধা এসএমএ খালেক সেরকম একজন সংগ্রামী মানুষ। মুক্তিযুদ্ধ শেষ করেও আবার ফুলবাড়ী খনি বরোধী আন্দোলনে যুক্ত ছিলেন। মুক্তিযুদ্ধ শেষ হয়নি, তিনি তার প্রমাণ। পরে উন্নত চিকিৎসার অভাবে মৃত্যু বরণ করেছেন।

তিনি আরো বলেন, বাংলাদেশে যারাই লুটপাট, চুরি, দুর্নীতি, রাহাজানি সন্ত্রাসী জাতীয় স্বার্থ বিরোধী কাজের সাথে যারাই জড়িত, তারাই মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বিরোধী। সে মুখে যাই বলুক। চিকিৎসার জন্য আমরা এখনো ভারতে যাচ্ছি, আর্থিক ভাবে দেশ এখনো সাবলম্বি নয়। শিক্ষায় এখনো বিদেশে পাড়ি জমাতে হচ্ছে।


© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত © ২০২০ বাঙলার জাগরণ
কারিগরি সহযোগিতায়: