রবিবার, ১৩ Jun ২০২১, ১১:০৫ অপরাহ্ন

শিরোনাম

নোয়াখালীর সুবর্ণচরে নারীকে ৫ টুকরো করে হত্যা

নোয়াখালী প্রতিনিধি :: নোয়াখালীর সুবর্ণচরে নুর জাহান বেগম (৫৭) নারীকে ৫ টুকরো করে হত্যার পর খন্ডিত আরও ৩টি অংশ উদ্ধার, থানায় মামলা, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আলমগীর হোসেন ও সিআইডির একটি প্রতিনিধি দল ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

বৃহস্পতিবার দুপুরের দিকে উপজেলার ১নং চরজব্বার ইউনিয়নের জাহাজমারা গ্রামে নৃশংস হত্যাকান্ডের ঘটনাস্থল ঐ নারীর বাড়িতে যান পুলিশ সুপার।

এর আগে সকালে ঐ নারীকে ৫ টুকরো করে হত্যার ঘটনায় শরীরের খন্ডিত নিখোঁজ আরও তিনটি অংশ উদ্ধার করেছে চর জব্বার থানা পুলিশ।

এর আগে গত বুধবার, দুর্বৃত্তরা নৃশংসভাবে ওই নারীকে টুকরো টুকরো করে কেটে হত্যা করে বিভিন্ন স্থানে শরীরের অঙ্গগুলো ছড়িয়ে ছিটিয়ে রাখে।

বৃহস্পতিবার (৮ অক্টোবর) সকাল ১১টার দিকে পুলিশ উপজেলার চরজব্বার ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডের উত্তর জাহাজমারা গ্রামের প্রভিডা ফিডে পিছনের একাধিক আবাধি ধান ক্ষেত থেকে শরীরে খন্ডিত নিখোঁজ অংশ গুলো উদ্ধার করে পুলিশ। উদ্ধারকৃত শরীরের অংশ গুলোর মধ্যে রয়েছে, গলা থেকে বুকের অংশ ও দু’টি পা। এ ঘটনায় নিহতের ছেলে হুমায়ূন কবির বুধবার রাতে বাদী হয়ে অজ্ঞাত আসামি করে চরজব্বার থানায় মামলা দায়ের করেন। নিহত নারী উপজেলার চরজব্বার ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডের মৃত আব্দুল বারেকের স্ত্রী।

নোয়াখালী পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আলমগীর হোসেন জানান, হত্যাকরার পরে তার লাশটাচার টুকরা করে ফেলে রাখে এটা একটা নৃশংসতা। মানুষ হত্যাকরে তবে এটা করার কারণ ও কেন করা হয়েছে এ বিষয়ে খতিয়ে দেখা হচ্ছে,আমরা খুব স্বল্প সময়ে এর ক্লু বের করতে সক্ষম হবো।

নিহতের ছোট ছেলে নোমান জানান, ঐদিন রাতে খাবার খেয়ে শুয়ে পড়ি, ভোর থেকে তার মা ঘর থেকে নিখোঁজ ছিল। পরে স্থানীয় এক ব্যক্তি বিকেলের দিকে ধানক্ষেতের আইলে শামুক খুঁজতে এসে একটি টুকরো টুকরো মরদেহ দেখতে পায়। পরে বিষয়টি জানাজানি হলে আমি মরদেহের পাশে শামুকের ব্যাগ দেখে, আমি শনাক্ত করি এটি আমার মায়ের মরদেহ।

তিনি আরো জানান,তার মায়ের সাথে কারো বিভেদ ছিলো না,কে বা কারা এঘটনা ঘটিয়েছে তা তার জানা নেই। তবে পাশ্ববর্তী রোজিনা নামের এক মহিলার সাথে টাকা লেনদেন সংক্রান্ত একটি বিভেদ ছিলো। এ হত্যাকান্ড রোজিনার ভাই আমির করতে পারে বলে প্রাথমিক ভাবে সে গণমাধ্যমকর্মীদের জানিয়েছেন।

উল্লেখ্য, বুধবার (৭ অক্টোবর) বিকেল ৫টার দিকে পুলিশ উপজেলার চরজব্বার ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডের উত্তর জাহাজ মারা গ্রামের প্রভিটাা ফিডে পিছনের একটি ধান ক্ষেত থেকে ওই গৃহবধূর মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

বুধবার ভোর থেকে তার মা ঘর থেকে নিখোঁজ ছিল। পরে স্থানীয় এক মহিলা বিকেলের দিকে ধান ক্ষেতের আইলে শামুক খুঁজতে এসে একটি টুকরো মরদেহ দেখতে পায়। পরে বিষয়টি জানাজানি হলে আমি মরদেহের পাশে শামুকের ব্যাগ দেখে, আমি শনাক্ত করি এটি আমার মায়ের মরদেহ।

নিউজটি শেয়ার করুন

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত © ২০২০ বাঙলার জাগরণ
কারিগরি সহযোগীতায় :বাংলা থিমস| ক্রিয়েটিভ জোন আইটি