বুধবার, ১৯ Jun ২০২৪, ০৮:৩৯ অপরাহ্ন

শিরোনাম
মানিকগঞ্জের দৌলতপুরে বঙ্গবন্ধু বঙ্গমাতা গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট অনুষ্ঠিত শিক্ষার্থী নির্যাতন প্রতিরোধে মাদরাসা প্রধানদের সাথে পুলিশের মতবিনিময় সভা মালয়েশিয়ায় ১২৩ বাংলাদেশীসহ ২১৪ অবৈধ অভিবাসী গ্রেপ্তার বেনজিরের আরও সম্পত্তি ক্রোকের নির্দেশ মডেল মির্জা মাহির প্রথম মিউজিক ভিডিও “কিশোরী রোদ” জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল এর সাংগঠনিক সম্পাদক আমান ডেঙ্গু জ্বর আক্রান্ত শিবালয়ে ভূমি সেবা সপ্তাহ শুরু উপলক্ষ্যে আলোচনা সভা রাজশাহী নগরীতে পুলিশের অভিযানে গ্রেপ্তার ২৫ চৌদ্দগ্রামে ভূমি সেবা সপ্তাহ’র ২০২৪ উপলক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত আওয়ামী লীগের জাতীয় সম্মেলন কবে, জানালেন ওবায়দুল কাদের

করোনার হটস্পটে গার্মেন্টস খোলার সিদ্ধান্ত হঠকারি ও আত্মঘাতি : বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টি

প্রেস বিজ্ঞপ্তি : বাংলাদেশের বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক এক বিবৃতিতে বলেন, আজ থেকে গার্মেন্টস কারখানা খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্তে গভীর উদ্বেগ ও উৎকন্ঠা প্রকাশ করেছেন এবং বলেছেন এই পর্যায়ে গার্মেন্টস কারখানা চালু করার তৎপরতা আত্মঘাতি হতে পারে; এই পদক্ষেপ করোনা সংক্রমনের দ্রুত বিস্তার ঘটাতে পারে। করোনার হটস্পট হিসাবে চিহ্নিত নারায়নগঞ্জ, গাজীপুর ও ঢাকায় গার্মেন্টস কারখানা চালু করার পর করোনা সংক্রমন পরিস্থিতির নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যাবার আশঙ্কা তৈরী করেছে।
বায়ারদের অর্ডারের কথা বলে মালিকদের চাপে গার্মেন্টস চালু করার উদ্যোগ সরকারের দ্বিমুখী, স্ববিরোধী ও সমন্বয়হীন নীতির বহিঃপ্রকাশ। বিবৃতিতে তিনি বলেন, যেখানে এখনও অনেক ডাক্তার, নার্সসহ চিকিৎসা কমীদেরকেই উপযুক্ত সুরক্ষা নিশ্চিত করা যায়নি, সেখানে গার্মেন্টসে শ্রমিকদের সুরক্ষা নিশ্চিত করা যাবে- এই ধরনের কোন পরিস্থিতি বাংলাদেশে এখনও তৈরী করা যায়নি। গার্মেন্টস কারখানাসমূহের বিদ্যমান কর্মপরিবেশে সামাজিক ও শারীরিক দূরত্ব বজায় রেখে উৎপাদন চালিয়ে যাবার মত অবস্থা এখনও পর্যন্ত নেই।

তদুপরি ৫ মে পর্যন্ত সরকারের সাধারণ ছুটি ঘোষণার মধ্যে গার্মেন্টস খোলার সিদ্ধান্ত হঠকারি ও দায়িত্বহীন। এতে কেবল গার্মেন্টস শ্রমিকেরাই সংক্রমনের বর্ধিত ঝুঁকিতে থাকবেন না, সংক্রমন গোটা সমাজেই আরো ছড়িয়ে পড়ার ক্ষেত্র তৈরী করবে।

বিবৃতিতে তিনি উল্লেখ করেন, করোনা পরিস্থিতিতে সীমিত আকারে আদালত খোলার সিদ্ধান্ত যেখানে স্থগিত করা হয়েছে সেখানে হাজার হাজার শ্রমিককে কিভাবে কোন যুক্তিতে কারখানায় যোগ দিতে বলা হচ্ছে। তিনি বলেন, ইতিমধ্যে বেশ ক’জন গার্মেন্টস শ্রমিক করোনায় প্রাণ হারিয়েছেন, আক্রান্ত হয়ে আছেন অনেকে। সারাদেশে আজ করোনা সংক্রমনের যে বিস্তৃতি তার এক উল্লেখযোগ্য অংশ ঘটেছে এই শ্রমজীবীদের মাধ্যমে।

তিনি উল্লেখ করেন, ক’দিন আগে প্রধানমন্ত্রীর সাথে ভিডিও কনফারেন্সে গাজীপুরের এসপি-ডিসি পরিস্কারভাবে বলেছেন কিভাবে ৫ এপ্রিল মালিকদের হঠকারি সিদ্ধান্তে গার্মেন্টস খুলে দেওয়ায় করোনা সংক্রমনের দ্রুত বিস্তার ঘটে। বিবৃতিতে বলা হয়, আগামী এক মাস বাংলাদেশে করোনা সংক্রমনের ঝুঁকি সবচেয়ে বেশী। এই অবস্থায় কোনভাবেই শ্রমিকদেরকে মালিকদের মুনাফার বলি হতে দেওয়া যায় না।

বিবৃতিতে তিনি বলেন, মালিকদের লোকসান পুষিয়ে নিতে সরকার যে পাঁচ হাজার কোটি টাকা প্রণোদনা দিয়েছে তা দিয়েও পরিস্থিতি অনেক সামাল দেয়া যাবে।

তিনি গার্মেন্টস শ্রমিকদের দারিদ্র্য ও অসহায়ত্বের সুযোগ নিয়ে তাদেরকে বিপদের মধ্যে ঠেলে না দিতে সরকার ও মালিকদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।


© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত © ২০২০ বাঙলার জাগরণ
কারিগরি সহযোগিতায়: