বুধবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৬:২২ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম
সুবর্ণচরে খামারিদের মাঝে ব্যবসা পরিকল্পনা প্রণয়ন বিষয়ক প্রশিক্ষণ দেওয়ানগঞ্জে ছাত্রলীগ নেতার বিরুদ্ধে বসত বাড়ীতে হামলার অভিযোগ চৌদ্দগ্রামে নিখোঁজের পরদিন বাড়ির পাশের পুকুরে মিলল শিশুর লাশ নেপাল থেকে কমে বিদ্যুৎ চায় বাংলাদেশ, চলছে দর কষাকষি ‘আর্থ-সামাজিক সূচকে অনেক উন্নত দেশের চেয়ে এগিয়ে বাংলাদেশ’ রোহিঙ্গা ক্যাম্পে বিস্ফোরণে মৃত বেড়ে ৩ জামালপুরে স্কুলের পাঠদান বন্ধ রেখে ধর্মমন্ত্রীর কর্মী সমাবেশ সুবর্ণচরে গণধর্ষণের ঘটনায় যাবজ্জীবন কারাদণ্ডপ্রাপ্ত আসামি মো. মিন্টু গ্রেপ্তার গাজীপুরে ৩৯তম আন্ত: জেলা কারাতে প্রতিযোগিতা সম্পন্ন জামালপুরের ফুটবল প্রেমীদের মাতিয়ে গেলেন ব্যারিস্টার সুমন

সিলেটে একদিনে রিপোর্ট পরিবর্তন হওয়া সেই ২৫ লন্ডন প্রবাসীরা ‘মুক্ত’

সিলেট প্রতিনিধি :: যুক্তরাজ্য থেকে সিলেটে আসা ২৯ প্রবাসীর শরীরে ধরা পড়েছিলো প্রাণঘাতি ভাইরাস করোনার অস্তিত্ব। তবে এই ২৯ জনের মধ্যে ২৫ জন একদিনের ব্যবধানে শনাক্ত হন করোনামুক্ত হিসেবে। দ্বিতীয় দফায় নুমনা পরীক্ষার পর তারা নেগেটিভ শনাক্ত হন।

পরবর্তীতে এই ২৫ জনের শরীরের নমুনা নিয়ে যাওয়া হয় ঢাকায়। তৃতীয় দফা টেস্টেও তারা করোনামুক্ত হিসেবে চিহ্নিত হন। পরে তাদেরকে পাঠানো হয় প্রাতিষ্ঠানিক থেকে হোম কোয়ারেন্টিনে।বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সিলেট বিভাগীয় কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক ডা. আনিসুর রহমান।

তিনি জানান, যুক্তরাজ্য থেকে দেশে আসা সেই ২৫ প্রবাসীর শরীরের নমুনা ঢাকার পরীক্ষায়ও নেগেটিভ এসেছে। এর আগে গত মঙ্গলবার সিলেটে দ্বিতীয় দফা পরীক্ষায় ফলাফল নেগেটিভ আসে। এদিকে টানা দুটি করোনা শনাক্তকরণ পরীক্ষার ফলাফল নেগেটিভ আসায় তাদেরকে হাসপাতাল থেকে ছেড়ে দেয়া হয়েছে। তারা সকলেই নিজ নিজ বাসায় ফিরেছেন।

ডা. আনিসুর রহমান আরও বলেন, তবে তাদেরকে পর্যব্ক্ষেণে রাখা হয়েছে। তাদেরকে বাধ্যতামূলক হোম কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে।

গত ২১ জানুয়ারি যুক্তরাজ্য থেকে বাংলাদেশ বিমানের বিজি-২০২ ফ্লাইটে সিলেটে আসেন ১৫৭ জন প্রবাসী। রবিবার তাদের নমুনা সংগ্রহ করে সীমান্তিকের ল্যাবে পরীক্ষা করা হলে ২৮ জন করোনা আক্রান্ত বলে শনাক্ত হন। এর আগে আসা আরেকজনের শরীরেও ধরা পড়ে করোনা। এ ২৯ জনের নমুনা মঙ্গলবার দ্বিতীয় দফা পরীক্ষা করা হয় শাবিপ্রবির ল্যাবে। দ্বিতীয় বার পরীক্ষায় ২৫ জনের রিপোর্ট নেগেটিভ আসে।

একদিনের ব্যবধানে রিপোর্ট পরিবর্তনের বিষয়ে ডা. আনিসুর রহমান বলেন, এটি অস্বাভাবিক নয়। বিভিন্ন কারণে একদিনের ব্যবধানে রিপোর্ট বদলাতে পারে। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য কারণগুলো হচ্ছে- আগে ঠিকমতো নিয়ম মেনে স্যাম্পল কালেকশন করা হয়নি। টেস্ট প্রক্রিয়া ইরোরও হতে পারে। অথবা ল্যাবেও সমস্যা থাকতে পারে। সর্বোপরি- ১৪ দিনের আগেও অনেকে করোনামুক্ত হতে পারেন।

এদিকে, যুক্তরাজ্য থেকে আসা সিলেটের ২৯ জন প্রবাসী মহামারি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার খবরে উদ্বীগ্ন স্বাস্থ্যবিভাগও। উদ্ভূত পরিস্থিতিতে ওই প্রবাসীদের শারীরিক তথ্য ও প্রয়োজনীয় নমুনা সংগ্রহ করতে ঢাকা থেকে জাতীয় রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর) ৭ সদস্যের একটি বিশেষ টিম মঙ্গলবার ছুটে আসে সিলেটে।

আইইডিসিআরের টিম করোনাক্রান্ত প্রবাসীদের শারীরিক তথ্য ও প্রয়োজনীয় নমুনা সংগ্রহ করে এবং তারপর সেগুলো পরীক্ষা-নিরীক্ষার জন্য ঢাকায় পাঠায়। ঢাকার রিপোর্টও নেগেটিভ আসলে অবশেষে সেই ২৫ প্রবাসীকে পাঠানো হয় নিজ নিজ বাড়িতে।


© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত © ২০২০ বাঙলার জাগরণ
কারিগরি সহযোগিতায়: