শনিবার, ১৫ Jun ২০২৪, ০৫:৫১ অপরাহ্ন

শিরোনাম
মানিকগঞ্জের দৌলতপুরে বঙ্গবন্ধু বঙ্গমাতা গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট অনুষ্ঠিত শিক্ষার্থী নির্যাতন প্রতিরোধে মাদরাসা প্রধানদের সাথে পুলিশের মতবিনিময় সভা মালয়েশিয়ায় ১২৩ বাংলাদেশীসহ ২১৪ অবৈধ অভিবাসী গ্রেপ্তার বেনজিরের আরও সম্পত্তি ক্রোকের নির্দেশ মডেল মির্জা মাহির প্রথম মিউজিক ভিডিও “কিশোরী রোদ” জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল এর সাংগঠনিক সম্পাদক আমান ডেঙ্গু জ্বর আক্রান্ত শিবালয়ে ভূমি সেবা সপ্তাহ শুরু উপলক্ষ্যে আলোচনা সভা রাজশাহী নগরীতে পুলিশের অভিযানে গ্রেপ্তার ২৫ চৌদ্দগ্রামে ভূমি সেবা সপ্তাহ’র ২০২৪ উপলক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত আওয়ামী লীগের জাতীয় সম্মেলন কবে, জানালেন ওবায়দুল কাদের

সভাপতিকে ক্যাম্পাস ছাড়া করতে একাট্টা

জাবি প্রতিনিধি: জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সভাপতি মো. জুয়েল রানাকে ক্যাম্পাস ছাড়া করতে একাট্টা হয়েছে ৭টি হলের নেতাকর্মীরা। তারা সভাপতিকে ছাড়াই রবিবার(২ফেব্রুয়ারি) বেলা সাড়ে ১২টার দিকে ক্যাম্পাসে এক বিশাল বিক্ষোভ মিছিল করেছে।

বিএনপির ডাকা হরতালের প্রতিবাদে তারা বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবহণ চত্বর থেকে মিছিলটি বের করে। পরে মিছিলটি বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের পাদদেশে এসে সংক্ষিপ্ত সমাবেশে মিলিত হয়।

এসময় সাতটি হলের পক্ষ থেকে শাখা ছাত্রলীগের উপ-দপ্তর সম্পাদক মাইনুল হুসাইন রাজন বলেন, ‘বিএনপির ডাকা অবৈধ হরতাল জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগ মানেনা।’ তিনি আরও বলেন, ‘গত ছয় মাস যাবৎ সাধারণ সম্পাদক ক্যাম্পাসে নেই। সভাপতিকেও সব সময় পাওয়া যায় না। এভাবে একটি গুরুত্বপূর্ণ ইউনিট চলতে পারে না। তাই আমরা এখন থেকে নতুন এই প্লাটফর্মে কর্মসূচী পালন করবো। আজ আপনাদের উপস্থিতি প্রমাণ করে নতুন প্লাটফর্মে প্রাণ ফিরে পেয়েছে শাখা ছাত্রলীগ।’

বিক্ষোভ মিছিলটি শাখা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি মো. মিজানুর রহমান ও জহিরুল ইসলাম বাবু, বায়েজিদ রানা কলিংস, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আফফান হোসেন আপন, সাংগঠনিক সম্পাদক মো. তারেক হাসান ও অভিষেক মন্ডল এবং নিলাদ্রী শিখর মজুমদার, মাহমুদুল হাসান রিজুর নেতৃত্বে মিছিলটি অনুষ্ঠিত হয়।

এদিকে মিছিল শেষে শাখা ছাত্রলীগের কয়েকজন সহ-সভাপতিসহ যুগ্ম সম্পাদক এবং সাংগঠনিক সম্পাদক বলেন, ‘আমরা দুই বছর আগে মেয়াদ শেষ হওয়া কমিটির সভাপতি জুয়েল রানাকে আর ক্যাম্পাসে দেখতে চাইনা। তিনি ছাত্রলীগকে ব্যাক্তি স্বার্থে ব্যাবহার করছেন। আমরা এখন থেকে সভাপতিকে ছাড়াই কর্মসূচী পালন করবো।’

এদিকে ছাত্রলীগের এই অংশের নেতারা জানান, ‘গত ৩০ জানুয়ারি (বৃহস্পতিবার) তারা বাইক শোডাইন দিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ও উপাচার্যের সাথে দেখা করে সভাপতি জুয়েল রানাকে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করেন। এ সময় জুয়েল রানাকে হল থেকে বের করে দিতেও প্রশাসনের কাছে দাবি জানান শাখা ছাত্রলীগের এসব নেতা।’

এই বিষয়ে সভাপতি মো. জুয়েল রানা বলেন,‘কয়েকজন নেতাকর্মী তাদের ব্যাক্তিস্বার্থ হাসিল করার জন্য এসব কথাবার্তা বলছে। আমরা ছাত্রলীগকে সুশৃঙ্খলভাবে পরিচালনা করে আসছি এবং করে যাব।’

প্রসঙ্গত, এর আগে গত ৩০ জানুয়ারি (বৃহস্পতিবার) সভাপতিকে অবাঞ্চিত ঘোষণা করে নতুন কমিটির দাবিতে ক্যাম্পাসে মোটরসাইকেল শোডাউন করে শাখা ছাত্রলীগের এই অংশটি। এরপর থেকে ক্যাম্পাস ছাত্রলীগের মাঝে উত্তেজনা বিরাজ করছে।


© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত © ২০২০ বাঙলার জাগরণ
কারিগরি সহযোগিতায়: