শনিবার, ১৫ Jun ২০২৪, ০৫:৩৫ অপরাহ্ন

শিরোনাম
মানিকগঞ্জের দৌলতপুরে বঙ্গবন্ধু বঙ্গমাতা গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট অনুষ্ঠিত শিক্ষার্থী নির্যাতন প্রতিরোধে মাদরাসা প্রধানদের সাথে পুলিশের মতবিনিময় সভা মালয়েশিয়ায় ১২৩ বাংলাদেশীসহ ২১৪ অবৈধ অভিবাসী গ্রেপ্তার বেনজিরের আরও সম্পত্তি ক্রোকের নির্দেশ মডেল মির্জা মাহির প্রথম মিউজিক ভিডিও “কিশোরী রোদ” জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল এর সাংগঠনিক সম্পাদক আমান ডেঙ্গু জ্বর আক্রান্ত শিবালয়ে ভূমি সেবা সপ্তাহ শুরু উপলক্ষ্যে আলোচনা সভা রাজশাহী নগরীতে পুলিশের অভিযানে গ্রেপ্তার ২৫ চৌদ্দগ্রামে ভূমি সেবা সপ্তাহ’র ২০২৪ উপলক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত আওয়ামী লীগের জাতীয় সম্মেলন কবে, জানালেন ওবায়দুল কাদের

ঠাকুরগাঁওয়ে ক্ষুধার জ্বালায় গলায় ফাঁস দিলেন হোটেল শ্রমিক

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি : ঠাকুরগাঁওয়ে খাবারের অভাবে বাড়ীর পার্শ্ববর্তী ধানক্ষেতের বিলের মাঝখানে আম গাছের ডালে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে এক হোটেল শ্রমিক। মৃত হোটেল শ্রমিক ওই এলাকার দারাব উদ্দীন পানোয়ারের ছেলে হোটেল শ্রমিক পশরি উদ্দীন ওরফে কেনকেনু (৪৫)।

গতকাল বুধবার ভোররাতে জেলার সদর উপজেলার ৯নং রায়পুর ইউনিয়নের বিষ্ণুপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। গতকাল বিকালে তার মরদেহ উদ্ধার করে মর্গে পাঠিয়েছে স্থানীয় থানা পুলিশ।

খাবারের অভাব, ক্ষুদার জ্বালা এবং ঋণে জর্জরিত হয়ে তিনি এপথ বেছে নিয়েছেন বলে পরিবারের লোকজন ও স্থানীয়রা জানিয়েছে।

মৃত পশরির স্ত্রী ও একমাত্র পুত্র সন্তান বাবুল জানান, পশরি খুব লাজুক স্বভাবের মানুষ ছিলেন। নেকমরদে থাকাকালীন সময় আমার বাবার কিছু দেনার মধ্যে ছিল। দাদার বাড়িতে এসে পার্শ্ববর্তী বাজারে এক হোটেলে কাজ করে জীবনযাপন করছিলাম আমরা। বর্তমান পরিস্থিতিতে কাজ না থাকায় খাবার যোগাড় করা কঠিন হয়ে দাঁড়ায়। খাবারের অভাব, ক্ষুধার জ্বালা ও ঋণের বোঝার কারনে আমার বাবা লজ্জায় নিজের জীবন কেড়ে নিলেন।

প্রতিবেশীদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, হোটেল শ্রমিক পজরি উদ্দীন মঙ্গলবার সকালে ক্ষুধার জ্বালায় টাকা ধার চেয়ে নেন। বুধবার সকালে জানা গেল তিনি গলায় ফাঁস দিয়ে আত্নহত্যা করেছে। ওইদিন তার সাথে কথা বলে মনে হয়েছিল কাজকর্ম না থাকায় ক্ষুধার জ্বালা ও অর্থের অভাবে নাজুক অবস্থা ছিল তার।

অপর আরেকজন প্রতিবেশী জানান, আমার ফসলি জমিতে থাকা আম গাছে গলায় ফাঁস দিয়ে পশির আত্নহত্যা করেছে। করোনা পরিস্থিতে হোটেল রেস্তোরা বন্ধ থাকায় পশরি ক্ষুধার যন্ত্রণা সইতে না পেরে তিনি এ পথ বেঁছে নিয়েছেন।

স্থানীয় এক মিল ব্যবসায়ী জানান, করোনাভাইরাসে কর্মহীন হওয়া পশির উদ্দীন খাবারের অভাব ও ঋণের বোঝায় শারীরিক ও মানসিক ভাবে অসুস্থ্য হয়ে পড়েন। নিজেকে নিয়ন্ত্রণ করতে না পেরে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্নহনন করেন।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে ৯নং রায়পুর ইউপি চেয়ারম্যান নুরুল ইসলামের সাথে কথা বললে তিনি জানান, পশির একজন হোটেল শ্রমিক এছাড়া ও বিভিন্ন জায়গায় কাজ করে জীবিকা নির্বাহ করতেন । শারীরিক ও মানসিক ভাবে সে অসুস্থ্য ছিল। আমি খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে বিষয়টি থানায় অবগত করলে ঠাকুরগাঁও তার মরদেহ উদ্ধার করে ঠাকুরগাঁও মর্গে পাঠায় পুলিশ।

ঠাকুরগাঁও সদর থানার ওসি তানভীরুল ইসলাম জানান, মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ মর্গে পাঠিয়েছে।


© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত © ২০২০ বাঙলার জাগরণ
কারিগরি সহযোগিতায়: