শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪, ০৮:৩৬ অপরাহ্ন

শিরোনাম
ঈদে ১৪ টি মিউজিক ভিডিও মুক্তি পেয়েছে প্রিন্স খানের চাটখিলে পৈত্রিক সম্পত্তি জবরদখলে ষড়যন্ত্রের অভিযোগ তপ্তদেহ শীতল করতো গাছের নিচে বসেই, গাছ না থাকায় এত গরম সরকার হজযাত্রীদের সর্বোত্তম সেবা দিতে বদ্ধপরিকর-ধর্মমন্ত্রী দেশের স্বার্থ বিরোধী কাজের সাথে যারাই জড়িত, তারাই মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বিরোধী – আনু মুহাম্মদ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে  প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা বাস্তবায়ন করতে হবে- সুবর্ণচর উপজেলা আ.লীগ হাতিয়ার উন্নয়নে সরকারের স্মার্ট বাংলাদেশ কর্মসূচিকে কাজে লাগানো হবে – মোহাম্মদ আলী এমপি সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে ৩৯ বছর পর জমি ফিরে পেলেন যদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা পরিবার শিবালয়ে ১৫তম  মাই টিভির প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত  ক্রীড়াবিদরা দেশের জন্য সম্মান বয়ে আনছে- ধর্মমন্ত্রী

ঠাকুরগাঁওয়ে চেক জালিয়াতির মামলায় আরও একজন গ্রেফতার

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি : চেক জালিয়াতির মাধ্যমে ৩৩ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নেওয়ার মামলায় ঢাকার শান্তিনগর শাখা আইএফআইসি ব্যাংকের কর্মকর্তা রফিকুল হাসানকে গ্রেফতার করেছে রুহিয়া থানা পুলিশ। গ্রেফতারকৃত ওই কর্মকর্তাকে বৃহস্পতিবার আদালতে সোপর্দ করা হলে তাকে ঠাকুরগাঁও কারাগারে পাঠানো হয়।

গ্রেফতারকৃত রফিকুল হাসান (৩৭) চুয়াডাঙ্গা জেলা ও থানার নীলমনিগঞ্জ গ্রামের মৃত হুমায়ুন কবিরের ছেলে।

তিনি আইএফআইসি ব্যাংকের ক্যাশ অফিসার থেকে প্রমোশন পেয়ে এখন অফিসার হিসেবে কর্মরত রয়েছেন।

পুলিশ জানায়,গত বছরের নভেম¦র মাসে ঢাকা শান্তিনগর শাখা আইএফআইসি ব্যাংকের তাহমিনা জাফর নামের একজন গ্রাহকের নামে অনলাইন চেক ইস্যু করে এবং তার স্বাক্ষর জাল করে ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার কুজিশহর গ্রামের হাবিবুর রহমানের স্ত্রী ইতি আকতারকে দেয় একটি চক্র। ইতি আকতার ওই চেক জেলার রুহিয়া শাখা জনতা ব্যাংকে তার নিজের হিসাব নাম্বারে জমা করে।

এভাবে ৩টি চেকের মাধ্যমে তাহমিনা জাফরের ৩২ লক্ষ ৭৭ হাজার টাকা হাতিয়ে নেওয়া হয়। জনতা ব্যাংক রুহিয়া শাখার ব্যবস্থাপক টাকা মোটা অংকের টাকা উত্তোলনে আপত্তি জানালে গ্রেফতারকৃত কর্মকর্তা রফিকুল হাসান মোবাইল ফোনে টাকা দিতে ব্যবস্থাপককে চাপ দেয়।

শুধু তাই নয়, মূল গ্রাহকের আইডি চাইলে ওই কর্মকর্তা তাহমিনা জাফরের আইডি কার্ড স্ক্যান করে রুহিয়া শাখা জনতা ব্যাংকে পাঠায়।পরবর্তীতে পরিশোধকৃত ৩টি চেকের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠে জালিয়াতির।

এ ঘটনায় জনতা ব্যাংক রুহিয়া শাখার ব্যবস্থাপক সুবাস চন্দ্র রায় বাদী হয়ে গ্রাহক ইতি আকতার সহ অজ্ঞাতনামা কয়েকজনকে আসামী করে চলতি বছরের ৯ ফেরুয়ারী রুহিয়া থানায় প্রতারণা ও চেক জালিয়াতির মাধ্যমে টাকা আত্বসাতের অভিযোগ এনে একটি মামলা দায়ের করে।

১৯ জুলাই প্রধান আসামী ইতি আকতার ঠাকুরগাঁও সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে আত্বসমর্পন পূর্বক জামিনের আবেদন জানালে আদালত তাকে কারাগারে পাঠায়।

ইতি আকতারকে রিমান্ডে নেওয়া হলে তার দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে এবং ব্যবহৃত মোবাইলের উপর তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহার করে পুলিশ রাসেল মিজি নামে অপর এক আসামীকে গ্রেফতার। আসামী ইতি আকতার ও রাসেল মিজি পুনরায় রিমান্ডে এনে মুখোমুখি করলে ইতি আকতার রাসেল মিজির হাতে সমুদয় টাকা তুলে দেওয়ার এবং রাসেল মিজি ব্যাংক কর্মকর্তা সহ অনেকের জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দেয়। অবশেষে পুলিশ ব্যাংক কর্মকর্তা রফিকুল হাসানকেও গ্রেফতার করে ঠাকুরগাঁওয়ে নিয়ে আসে।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা উপ-পরিদর্শক আবু বক্কর সিদ্দিক জানান,আইএফআইসি ব্যাংকের চেক জালিয়াতির ঘটনায় ব্যাংক কর্মকর্তা রফিকুল হাসান প্রত্যক্ষভাবে জড়িত আছে। কারণ কোন গ্রাহকের একাউন্টে কি পরিমাণ টাকা আছে তা ব্যাংকের লোকজনই ভাল জানে।

রুহিয়া থানার ওসি চিত্তরঞ্জন রায় জানান, গ্রেফতারকৃত ব্যাংক কর্মকর্তা রফিকুল হাসানকে রিমান্ডে নেওয়ার আবেদন করা হয়েছে। তাকে রিমান্ডে জিজ্ঞাসাবাদ করা হলে আরো কারা জড়িত আছে তা বের হয়ে আসবে।

উল্লেখ্য,ফেসবুকে পরিচয়ের সূত্র ধরে ঢাকার এক ব্যক্তি রুহিয়া শাখা জনতা ব্যাংকের গ্রাহক ইতি আকতারকে কনষ্ট্রাকশন কাজের ব্যয় নির্বাহ করার অজুহাতে ঢাকা শান্তিনগর শাখা আইএফআইসি ব্যাংকের কয়েকটি জাল চেক দিয়ে টাকা তুলে দেওয়ার অনুরোধ জানায়।

ওই নারী গ্রাহক কোন কিছু না বুঝে ওইসব চেক তার নিজের একাউন্টে জমা করে কালেকশনের মাধ্যমে গত বছরের ২১ নভেম্বর ৪ লক্ষ টাকা পরবর্তীতে আরো ২টি চেকের মাধ্যমে মোট ৩২ লক্ষ ৭৭ হাজার টাকা উত্তোলন করে রাসেল মিজির হাতে তুলে দেয়। বিনিময়ে ওই নারীকে বখশিশ হিসেবে মাত্র ১৫ হাজার টাকা উপহার দেয়।


© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত © ২০২০ বাঙলার জাগরণ
কারিগরি সহযোগিতায়: