বৃহস্পতিবার, ০৫ অগাস্ট ২০২১, ০৫:৩১ পূর্বাহ্ন

ঠাকুরগাঁওয়ে কমিউনিটি ক্লিনিকের স্বাস্থ্যসেবা থেকে বঞ্চিত সাধারণ মানুষ

sdr

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি : বর্তমান সরকার স্বাস্থ্য সেবা মানুষের দোরগোড়ায় পৌঁছে দেওয়ার লক্ষ্যে কমিউনিটি ক্লিনিকগুলো চালুর উদ্যোগ নিলেও ঠাকুরগাঁও জেলার রাণীশংকৈল উপজেলায় ২৬টি কমিউনিটি ক্লিনিক থেকে কাঙ্খিত স্বাস্থ্য সেবা পাচ্ছে না সাধারণ মানুষ।

জানা যায়, পল্লী অঞ্চলে সাধারণ মানুষের চিকিৎসা সেবা নিশ্চিতকরণের লক্ষ্যে ১৯৯৬ খ্রিষ্টাব্দে সরকার উপজেলায় ২৬টি কমিউনিটি ক্লিনিক স্থাপন করেন। স্থাপনের পর ক্লিনিকগুলো থেকে সাধারণ মানুষ চিকিৎসা সেবা পেতে শুরু করলেও সঠিক রক্ষণাবেক্ষণের অভাবে ইতোমধ্যে ক্লিনিকগুলো বন্ধ হয়ে যাচ্ছে।

বর্তমানে যে ক্লিনিক গুলো চালু রয়েছে সেগুলোতে প্রয়োজনীয় ওষুধ পত্র না থাকায় কর্তব্যরত কমিউনিটি হেলথ কেয়ার প্রোভাইডরগণ (সিএইচসিপি) কর্মস্থলে না থেকে বাসায় বসে সময় কাটাচ্ছেন। এতে পল্লী অঞ্চলের মানুষ স্বাস্থ্য সেবা নিতে গিয়ে হতাশ হয়ে ফিরে যাচ্ছেন।

এছাড়া ক্লিনিকগুলোতে অস্বাস্থ্যকর পরিবেশ বিরাজ করায় অনেকে ক্লিনিক থেকে মুখ ফিরিয়ে নিচ্ছে। এ অবস্থা চলতে থাকায় ক্লিনিকগুলো মাসে দুই/এক দিন ছাড়া খোলা হচ্ছে না। কোনো কোনো ক্লিনিক গবাদিপশুর চারণ ভূমি হিসাবে ব্যবহার হচ্ছে ।

এব্যপারে ক্লিনিক পরিদর্শনকারী ডাঃ মোর্শেদ জানান, কিছু ক্লিনিকের ব্যপারে আমাদেরও নজরদারী আছে। তবে বন্ধ ক্লিনিকগুলোর কর্মকর্তারা ছুটিতে আছে কিনা আমার জানা নেই।

উপজেলা স্বাস্থ্য পঃপঃ কর্মকর্তা ডাঃ আব্দুস সামাদ ক্লিনিকগুলোর অনিয়মের কথা স্বীকার করে বলেন কিছু ক্লিনিকের বেতন বন্ধ রাখা হয়েছে, কাউকে আবার শোকজ করা হয়েছে।

এবিষয়ে জেলা সিভিল সার্জন ডাঃ মাহাফুজুর রহমান বলেন, কমিউনিটি ক্লিনিকের ব্যপারে আমিও খোঁজ খবর নেব।

এ প্রসঙ্গে ঠাকুরগাঁও-৩ আসনের সংসদ সদস্য জাহিদুর রহমান বলেন, আমি নির্বাচিত হওয়ার পর থেকে এপর্যন্ত হাসপাতালের কোন সভা করা হয়নি। তাছাড়া স্বাস্থ্য ও প:প: কর্মকর্তাকে সরকারিভাবে একটি গাড়ী দেওয়া হয়েছে ক্লিনিকগুলো পরিদর্শনের জন্য তাও তিনি করছেন না।

নিউজটি শেয়ার করুন

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত © ২০২০ বাঙলার জাগরণ
কারিগরি সহযোগীতায় :বাংলা থিমস| ক্রিয়েটিভ জোন আইটি