শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৩:৫০ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম
আবারও ক্যানসারে আক্রান্ত হয়ে সিঙ্গাপুরে চিকিৎসাধীন সাবিনা ইয়াসমিন বিএনপির আন্দোলনে অবশ্যই সরকার পরিবর্তন হবে: নজরুল আগামীতে পেঁয়াজ আমদানি করতে হবে না: প্রধানমন্ত্রী বিশ্ব বাজারে জ্বালানি তেলের দাম কমেছে শিবালয়ে রাজ্জাক কে নতুন ঘর তুলে দিলেন শতরুপা ফাউন্ডেশন জামালপুরে দরিদ্র শিশুদের মাঝে শিক্ষা উপকরণ বিতরণ নোয়াখালীতে দাখিল পরীক্ষায় দায়িত্বে অবহেলা ও নকলে সহযোগিতার অপরাধে ৮ শিক্ষককে অব্যাহতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুর রশিদ চেয়ারম্যান এর লাশ রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাফন ছুটির দিনে জমজমাট বইমেলা, ক্রেতার চেয়ে বেশি দর্শনার্থী সীমান্ত হত্যা বন্ধে হানিফ বাংলাদেশীর প্রতীকী লাশের মিছিল এখন বকশীগঞ্জে

আগুনে দগ্ধ হয়ে স্বামী-স্ত্রীসহ নিহত-৪

কালিয়াকৈর প্রতিনিধি :: গাজীপুরের কালিয়াকৈরে গতকাল সোমবার ভোরে গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণ হয়েএকই স্থানে চারটি কলোনিতে ভয়াবহ অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটেছে। আগুনে দগ্ধ হয়ে স্বামী-স্ত্রীসহ চারজন নিহত হয়েছেন।

এদের মধ্যে একে অন্যের জীবন বাঁচাতে, কেউ শেষ সম্ভলের টাকা ও কেউ পরণের কাপড় আনতে গিয়ে দগ্ধ হয়েমারাযান। এ সময় দগ্ধ ও আহত হয়েছেন কমপক্ষে ১৫ জন। আগুনে ৪৯টি কক্ষ ও কক্ষে থাকা টাকা-পয়সা, বিভিন্ন মালামাল পুড়ে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। এ ঘটনায় ওই এলাকায় শোকের ছায়া নেমে আসে।

নিহতরা হলেন- গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ থানার সুন্দাইলপুর গ্রামের শামসুল হুদার ছেলে মিলন মিয়া (৩৭), মিলনের স্ত্রী মুন্নি আক্তার (৩০), একই থানার জরিপপুর গ্রামের আশরাফ আলীর ছেলে ফরহাদ হোসেন (৩৮) ও একই জেলার পলাশবাড়ী থানার
জগন্নাথপুর গ্রামের উসমান গনির ছেলে আব্দুল আউয়াল (৪০)। এরা সবাই স্থানীয় পোশাক কারখানার শ্রমিক ছিলেন।

এলাকাবাসী, ফায়ার সার্ভিস ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, কালিয়াকৈর উপজেলায় কালামপুর পূর্বপাড়া রেললাইন পাকার মাথা এলাকায় ভোর সাড়ে ৫টার দিকে এ ভয়াবহ অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটে। গত কয়েক দিন ধরে জনি মিয়ার কলোনির একটি কক্ষে
সিলিন্ডারের গ্যাস লিকেজ করছিল। খবর পেয়ে ওই কলোনির ম্যানেজারসহ পাশে ভাড়াটে লোকজন ওই গ্যাস সিলিন্ডার ব্যবহার করতে নিষেধ করেন। তাদের নিষেধের তোয়াক্কা না করে ওই কক্ষের ভাড়াটে সিলিন্ডারের উপর ইট দিয়ে গ্যাস ব্যবহার করে
আসছিলেন।

গতকাল সোমবার ভোর সাড়ে ৫টার দিকে ওই কক্ষে গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণ ঘটে এবং আগুন জ্বলে উঠে। মুহুর্তের মধ্যে আগুন ওই কলোনির বাকী কক্ষ এবং পাশের জাকির হোসেন, জনি মিয়া, মোহাম্মদ আলী ও লিটন হোসেনের
কলোনিতে ছড়িয়ে পড়ে। এ সময় আতংকিত হয়ে এসব কলোনিতে থাকা পোশাক শ্রমিকরা তাদের শিশু ছেলে-মেয়েদের নিয়ে বাইরে চলে আসে। আতংকিত হয়ে পড়ে আশপাশে থাকা অন্যান্য কলোনি ও বাসা বাড়ির লোকজনও। আগুন নেভাতে গিয়ে
ব্যর্থ হয়ে ফায়ার সার্ভিসে খবর দেয় এলাকাবাসী। খবর পেয়ে কালিয়াকৈর ফায়ার সাভির্সেও তিনটি ইউনিট ঘটনাস্থলে গিয়ে প্রায় ১ ঘণ্টা চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

ততক্ষণে আগুনে দগ্ধ হয়ে মিলন মিয়া ও তার স্ত্রী মুন্নি আক্তার, পাশের ভাড়াটে ফরহাদ হোসেন ও আব্দুল আউয়ালের তাজা প্রাণ ঝড়ে যায়।পরে ফায়ার সার্ভিস ও কালিয়াকৈর থানা পুলিশ নিহতদের লাশ উদ্ধার করে। আগুনে পুড়ে গেছে ৪৯টি কক্ষ ও কক্ষে থাকা টাকা-পয়সা, পরণের কাপড়, লেপ-তুষক, টেলিভিশন, ফ্রিজ, বিদ্যুতের মিটারসহ বিভিন্ন মূল্যবান মালামাল। এতে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে জানিয়েছেন ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের লোকজন। আগুন নেভাতে গিয়ে দগ্ধ ও আহত হয়েছেন কমপক্ষে ১৫ জন। তাদের পরিচয় জানা যায়নি।এ ঘটনায় ওই এলাকায় শোকের মাতম সৃষ্টি হয়।


© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত © ২০২০ বাঙলার জাগরণ
কারিগরি সহযোগিতায়: