শনিবার, ১৫ Jun ২০২৪, ০৪:১৭ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম
মানিকগঞ্জের দৌলতপুরে বঙ্গবন্ধু বঙ্গমাতা গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট অনুষ্ঠিত শিক্ষার্থী নির্যাতন প্রতিরোধে মাদরাসা প্রধানদের সাথে পুলিশের মতবিনিময় সভা মালয়েশিয়ায় ১২৩ বাংলাদেশীসহ ২১৪ অবৈধ অভিবাসী গ্রেপ্তার বেনজিরের আরও সম্পত্তি ক্রোকের নির্দেশ মডেল মির্জা মাহির প্রথম মিউজিক ভিডিও “কিশোরী রোদ” জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল এর সাংগঠনিক সম্পাদক আমান ডেঙ্গু জ্বর আক্রান্ত শিবালয়ে ভূমি সেবা সপ্তাহ শুরু উপলক্ষ্যে আলোচনা সভা রাজশাহী নগরীতে পুলিশের অভিযানে গ্রেপ্তার ২৫ চৌদ্দগ্রামে ভূমি সেবা সপ্তাহ’র ২০২৪ উপলক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত আওয়ামী লীগের জাতীয় সম্মেলন কবে, জানালেন ওবায়দুল কাদের

প্রতিপক্ষকে “সহজ” বানিয়ে জিতেছে নেদারল্যান্ডস

ডালাসের গ্র্যান্ড প্রেইরি স্টেডিয়ামে আইসিসি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ‘ডি’ গ্রুপের ম্যাচে বুধবার (৪ জুন) নেপালকে ৬ উইকেটে হারিয়েছে নেদারল্যান্ডস। নেপাল প্রথমে ব্যাটিংয়ে নেমে ১৯.২ ওভারে ১০৬ রানে অলআউট হয়ে যায়। প্রতিপক্ষ নেদারল্যান্ডস জবাবে ৮ বল বাকি থাকতেই লক্ষ্যে পৌঁছায় যায়।

এ দিন টসে জিতে নেপালকে ব্যাটিংয়ে পাঠায় নেদারল্যান্ডস। ডাচ বোলারদের চৌকষ বোলিং এ শুরু থেকেছে নেপালি ব্যাটসম্যানদের রান তোলার গতিকে সীমিত রাখে ডাচ বোলারররা। ভিভিয়ান কিংমা ছাড়া সবাই উইকেট পেয়েছেন। শুরুতে ধস নামান বাঁহাতি স্পিনার টিম প্রিঙ্গল। তার সঙ্গে জ্বলে ওঠেন পেসাররাও। ৮ ওভার করে ২০ রানের খরচায় ৩টি উইকেট নেন প্রিঙ্গল।

তিন উইকেট পেয়েছেন পেসার লোগান ফন বিকও। ৩.২ ওভার বোলিং করে তিনি খরচ করেন ১৮ রান। বিককে সমান তালে সহযোগিতা করেন সহযোদ্ধা পল ফন মিকেরেন ও বাস ডি লিডিও। অসাধারণ বোলিং করেছেন তারাও। এই দুই পেসারই পান ২টি করে উইকেট। দুই জন চার ওভার করে করচ যথাক্রমে ১৯ ও ২২ রান।

লক্ষ্য তাড়ায় নেমে অবশ্য শুরুটা ভালো করতে পারেনি নেদারল্যান্ডস। ব্যক্তিগত ১ রানেই ওপেনার মাইকেল লেভিটকে তুলে নেন নেপালের সম্পাল কামি। এরপর বিক্রমজিত সিংকে নিয়ে দলের হাল ধরেন আরেক ওপেনার ও’ডাওড। ৪০ রানের জুটি গড়েন এ দুই ব্যাটার।

তবে বিক্রমজিতকে ফিরিয়ে এই জুটি ভাঙেন দিপেন্দ্র সিং আইরি। তাকে এলবিডাব্লিউর ফাঁদে ফেলেন এই পেসার। ২৮ বলে ২২ রান করেন এই ব্যাটার। এরপর সাইব্র্যান্ড এঙ্গেলব্রেখটকে এগিয়ে যেতে থাকেন ও’ডাওড। ৩৮ রানের জুটিও গড়েন তারা। তাতে সহজ জয়ের দিকেই এগিয়ে যাচ্ছিল দলটি।

তবে সাইব্র্যান্ড এঙ্গেলব্রেখটকে রানআউট করে ঘুরে দাঁড়ায় নেপাল। কিছুটা দুর্ভাগ্যজনকভাবে রানআউট হন এঙ্গেলব্রেখট। ও’ডাওডের স্ট্রেইট ড্রাইভ বোলার সম্পালের হাত ছুঁয়ে স্টাম্প ভাঙলে সাজঘরে ফিরতে হয় এই ব্যাটারকে। তার ব্যাট থেকে আসে ১৪ রান। একই ওভারে স্কট এডওয়ার্ডসকেও আউট দিয়েছিলেন আম্পায়ার। রিভিউ নিয়ে বেঁচে যান স্কটিশ অধিনায়ক। তবে ব্যক্তিগত ৫ রানে তাকে বোল্ড করে দেন অবিনাশ বোহারা।

তাতে জমে ওঠে ম্যাচ। শেষ তিন ওভারে যখন ১৮ রানের প্রয়োজন তখন ও’ডাওডকে ফেরানর সুযোগ পেয়েছিল নেপাল। কিন্তু সে সুযোগ লুফে নিতে পারেননি অধিনায়ক রোহিত। তার ক্যাচ মিসের সঙ্গে যেন ম্যাচও মিস করে ফেলে দলটি। এরপর বাকি কাজ বাস ডি লিডিকে নিয়ে শেষ করেন ও’ডাওড। শেষ পর্যন্ত ব্যাটিং করে ৫৪ রানে অপরাজিত থেকে দলকে জিতিয়েই মাঠ ছাড়েন তিনি।

নেপালের হয়ে অধিনায়ক রোহিত পাউডেল ছাড়া কোনো ব্যাটারই লড়াই করতে পারেননি। প্রিঙ্গলের বলে আউট হওয়ার আগে তিনি ৩৭ বলে ৫টি চারের সাহায্যে সর্বোচ্চ ৩৫ রান আসে তার ব্যাট থেকে।

পাউডেল ছাড়া দুই অঙ্ক স্পর্শ করতে পেরেছেন কেবল তিন ব্যাটার। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ১৭ রান করেন নয় নম্বরে নামা করণ কেসি। এছাড়া গুলশান ঝা ১৪ ও অনিল শাহ ১১ রান করেন। তাতে ১০৬ রানে নেপালকে গুটিয়ে দেন নেদারল্যান্ডস।


© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত © ২০২০ বাঙলার জাগরণ
কারিগরি সহযোগিতায়: