শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৬:২৪ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম
আবারও ক্যানসারে আক্রান্ত হয়ে সিঙ্গাপুরে চিকিৎসাধীন সাবিনা ইয়াসমিন বিএনপির আন্দোলনে অবশ্যই সরকার পরিবর্তন হবে: নজরুল আগামীতে পেঁয়াজ আমদানি করতে হবে না: প্রধানমন্ত্রী বিশ্ব বাজারে জ্বালানি তেলের দাম কমেছে শিবালয়ে রাজ্জাক কে নতুন ঘর তুলে দিলেন শতরুপা ফাউন্ডেশন জামালপুরে দরিদ্র শিশুদের মাঝে শিক্ষা উপকরণ বিতরণ নোয়াখালীতে দাখিল পরীক্ষায় দায়িত্বে অবহেলা ও নকলে সহযোগিতার অপরাধে ৮ শিক্ষককে অব্যাহতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুর রশিদ চেয়ারম্যান এর লাশ রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাফন ছুটির দিনে জমজমাট বইমেলা, ক্রেতার চেয়ে বেশি দর্শনার্থী সীমান্ত হত্যা বন্ধে হানিফ বাংলাদেশীর প্রতীকী লাশের মিছিল এখন বকশীগঞ্জে

ক্ষমা চেয়েছেন মেসি

নিউজ ডেস্ক :: স্প্যানিশ সুপার কাপের ফাইনাল ম্যাচে মেজাজ হারিয়ে প্রতিপক্ষ খেলোয়াড়কে ধাক্কা মেরে ফেলে দেওয়ার ঘটনায় লাল কার্ড দেখে ম্যাচ থেকে বহিষ্কার হন লিওনেল মেসি। সেই ঘটনায় সতীর্থদের কাছে ক্ষমা চেয়েছেন বার্সেলোনা সুপারস্টার। খবর মার্কা।

প্রতিবেদনে বলা বয়েছে, রোববার ফাইনাল শেষে ড্রেসিংরুমে মেসি ছিলেন হতাশাগ্রস্ত। একে তো দলের ফাইনাল হার অন্যদিকে নিজের লাল কার্ড। এই দুই ঘটনায় ফুটবল মঞ্চের সেরা তারকা ছিলেন হতাশ। মাঠের পারফরম্যান্স এবং নিজের লাল কার্ডের জন্য সতীর্থদের কাছে ক্ষমা চান তিনি।

রোববারের রাতটি মেসির কাছে ছিল বিভীষিকাময়। কারণ সেই রাতে মেসিকে হজম করতে হয় বার্সেলোনার জার্সিতে প্রথম লাল কার্ড। ফাইনালের আগে বার্সেলোনার জার্সিতে ৭৫৩ ম্যাচ খেলেছেন মেসি। মাঠ থেকে সরাসরি কখনো তাকে উঠে যেতে হয়নি। ম্যাচ যখন হাত থেকে বেরিয়ে যায় তখন মেজাজ হারিয়ে বিলবাওয়ের এসিয়ের ভিয়ালিব্রেকে ঢুসা মেরে ভুপাতিত করেন মেসি।

রেফারির চোখ প্রথমে এই ঘটনা এড়িয়ে যায়। পরে ভিএআরের সাহায্য নিয়ে রেফারি মেসিকে লাল কার্ড দেখান।

এ ঘটনায় মেসি চার ম্যাচ নিষিদ্ধ হতে পারেন। স্প্যানিশ ফেডারেশন তার ঘটনা তদন্ত করে সিদ্ধান্ত জানাবে। যদি চার ম্যাচের জন্য নিষিদ্ধ হন তাহলে বৃহস্পতিবার কোপা ডেল রে’র ম্যাচে করনেলার বিপক্ষে খেলতে পারবেন না মেসি। পাশাপাশি লা লিগায় ইলচে, অ্যাথলেটিক ক্লাব ও রিয়েল বেতিসের বিপক্ষেও ম্যাচ মিস করবেন তিনি।

বার্সেলোনা ও মেসি যেন পরিপূরক হয়ে উঠেছেন। ২০০৫ সালে কাতালান শিবিরে যোগ দেওয়ার পর মহাতারকা মেসি ক্যাম্প ন্যু মাতিয়েছেন নিজের ছন্দে। পেয়েছেন যশ-খ্যাতি, ঐশ্বর্য।

এটি ছাড়াও মেসি আরও দুইটি লাল কার্ড দেখেন। ওই দুইটি জাতীয় দল আর্জেন্টিনার জার্সিতে। প্রথমটি ২০০৫ সালে জাতীয় দলের অভিষেক ম্যাচে। পরেরটি ১৪ বছর পর ২০১৯ সালে কোপা আমেরিকার তৃতীয় স্থান নির্ধারণী ম্যাচে।
এএইচ/এসএ/


© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত © ২০২০ বাঙলার জাগরণ
কারিগরি সহযোগিতায়: