মঙ্গলবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৮:২১ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম
রাণীশংকৈল উপজেলা আওয়ামী লীগ কমিটির পরিচিতি সভা অনুষ্ঠিত সাধারচর ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে নৌকার মনোনয়ন প্রত্যাশী জহিরুল হকের শোডাউন মুন্সীগঞ্জে আট ডাকাত গ্রেফতার ডাকাতি হওয়া মামামাল উদ্ধার বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় ফেনী সদর উপজেলা চেয়ারম্যান নির্বাচিত : শুসেন দিনাজপুরে বিসিক এলাকায় পাটজাত পণ্যের গুদামে আগুন বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ পাঠ্যসূচিতে অন্তর্ভুক্তি সময়ের দাবি-তসলিমা আক্তার মানিকগঞ্জের শিবালয়ে এমপি দুর্জয়ের ৪৭ তম জন্মদিন পালন আগামীকাল নির্বাচন হাতিয়ার ৭ টি ইউনিয়নে কেন্দ্র পৌছেছে মালামাল শরীয়তপুরে জাজিরা মাঝির ফেরিঘাট চালুর দাবিতে গণ-অনশন সোনাগাজী পৌরসভার নির্বাচনে প্রচারণার শেষ দিনে আ.লীগ প্রার্থীর পথ সভা

মিয়ানমারে আটকে পড়া বিক্ষোভকারীরা মুক্তি পেয়েছেন

নিউজ ডেস্ক :: মিয়ানমারের ইয়াঙ্গুনের একটি এলাকায় নিরাপত্তা বাহিনীর হাতে আটকে পড়া প্রায় দুইশ’ অভ্যুত্থানবিরোধী বিক্ষোভকারী মুক্তি পেয়েছেন।

আটকে পড়া বিক্ষোভকারীদের নিরাপদে মুক্তি দিতে সেনা সরকারের প্রতি পশ্চিমা বিশ্ব ও জাতিসংঘের আহ্বানের পর মঙ্গলবার সকালে তাদের ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। সোমবার থেকে ইয়াঙ্গুনের একটি এলাকায় এসব বিক্ষোভকারীকে ঘিরে রেখেছিল নিরাপত্তা বাহিনী। খবর রয়টার্সের

ইয়াঙ্গুনের সানচং জেলায় বিপুল সংখ্যক মানুষ কারফিউ উপেক্ষা করে রাতে রাস্তায় নেমে নিরাপত্তা বাহিনীর মনোযোগ আকর্ষণের চেষ্টা করে যাতে করে আটকে পড়া বিক্ষোভকারীরা নিরাপদে বের হয়ে যেতে পারেন। তবে তাদের ওপর সাউন্ড গ্রেনেড ও ফাঁকা গুলি বর্ষণ করে নিরাপত্তা বাহিনী।

গত ১ ফেব্রুয়ারি সামরিক অভ্যুত্থানের মাধ্যমে বেসামরিক সরকারকে হটিয়ে সেনাবাহিনী মিয়ানমারের ক্ষমতা দখল করে। নির্বাচিত নেত্রী সু চি ও এনএলডির অধিকাংশ নেতাকে হয় কারাগারে না হয় বাড়িতে বন্দি করে রেখেছে সেনাবাহিনী। সবমিলিয়ে এখন পর্যন্ত গ্রেপ্তার করা হয়েছে ১৮শ’র বেশি মানুষকে।

অভ্যুত্থানের পর থেকেই মিয়ানমারজুড়ে বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে। এ পর্যন্ত সেনা সরকারের বিরুদ্ধে বিক্ষোভে ৬০ জনেরও বেশি প্রাণ হারিয়েছেন।

সানচং এলাকার বাড়ি বাড়ি তল্লাশি চালিয়ে সেখানকার বাসিন্দা নয় এমন ব্যক্তিদের খুঁজছে পুলিশ। এই অভিযানে অন্তত ৫০ জনকে আটক করা হয়েছে বলে সেখানকার বাসিন্দারা জানিয়েছেন। কাউকে লুকিয়ে রাখলে বাসিন্দাদের শাস্তি দেওয়া হবে বলেও হুঁশিয়ারি দিয়েছে নিরাপত্তা বাহিনী।

সেনাশাসকদের ওপর চাপ সৃষ্টির লক্ষ্যে সোমবার ধর্মঘটের ডাক দেয় দেশটির গুরুত্বপূর্ণ ট্রেড ইউনিয়নগুলো। ধর্মঘটের ফলে বন্ধ থাকে বৃহত্তম শহর ইয়াঙ্গুনের দোকানপাট, কলকারখানা। নির্মাণ, কৃষি ও পণ্য উৎপাদনসহ অন্তত নয়টি খাতের ট্রেড ইউনিয়ন ধর্মঘটে অংশ নেয়। এছাড়া আইন প্রয়োগের অজুহাতে হাসপাতাল এবং বিশ্ববিদ্যালয়েও মোতায়েন করা হয় নিরাপত্তা বাহিনী।

আটকে পড়া বিক্ষোভকারীদের নিরাপদে মুক্তি দিতে সেনা সরকারের প্রতি আহ্বান জানান জাতিসংঘ মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরেস। তিনি সর্বোচ্চ ধৈর্য্য ধারণের আহ্বান জানান। সহিংসতা এবং গ্রেপ্তার ছাড়াই আটকে পড়াদের নিরাপদে বের হয়ে যেতে দেওয়ার আহ্বান জানান তার মুখপাত্র স্টিফেন দুজারিক। তিনি বলেন, ‘আটকে পড়া অনেকেই নারী, তারা আন্তর্জাতিক নারী দিবস পালন করতে শান্তিপূর্ণ মিছিলে অংশ নেয়।’

শার ইয়া মোনে নামে এক কর্মী জানান, তিনি প্রায় ১৫ থেকে ২০ জনের সঙ্গে একটি ভবনের ভেতরে সারারাত আটকা ছিলেন। ভোরে তিনি নিরাপদে ঘরে ফিরতে পেরেছেন।

স্বৈরশাসনের অবসান না ঘটা পর্যন্ত বিক্ষোভ করার প্রতিশ্রুতি দিয়ে তিনি বলেন, মুক্তি পাওয়ার পর বিক্ষোভকারীদের অনেকে স্বাগত জানিয়েছেন।

অপর এক বিক্ষোভকারী সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করে জানিয়েছেন, ভোর ৫টার দিকে নিরাপত্তা বাহিনী সরে যাওয়ার পর তারা বাড়ি ফিরে আসেন। তার সঙ্গে থাকা সবাই নিরাপদেই বাড়ি ফিরেছেন।

তবে প্রায় ৪০ জনের মতো বিক্ষোভকারীকে আটক করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি।

নিউজটি শেয়ার করুন

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত © ২০২০ বাঙলার জাগরণ
কারিগরি সহযোগীতায় :বাংলা থিমস| ক্রিয়েটিভ জোন আইটি