বৃহস্পতিবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০২২, ০৭:৪৯ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম
আবারও শ্বাসরুদ্ধকর জয়, ৭ বছর পর ভারতের বিপক্ষে সিরিজ বাংলাদেশের নয়াপল্টনে সরব বিএনপি নেতাকর্মীরা, সতর্ক অবস্থানে পুলিশ নয়াপল্টনে সমাবেশ করলে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী কেন্দ্রীয় ব্যাংক থেকে ধার প্রথম দিনই ৪ হাজার কোটি টাকা নিলো পাঁচ ইসলামী ব্যাংক সংঘাত নয়, আমরা সমঝোতায় বিশ্বাসী: প্রধানমন্ত্রী কর্মক্ষেত্রে মানসিক নির্যাতনের শিকার ৫৮ কোটি মানুষ আবারও ট্রোলের শিকার জ্যাকুলিন বেগমগঞ্জের দুর্গাপুর ইউনিয়ন ছাত্রদলের কমিটি গঠন কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতি (কুবিসাস) এর এক দশকে পদার্পণ বিএনপির মনোনয়ন বাণিজ্যের কথা ‘ফাঁস করলেন’ প্রধানমন্ত্রী

বগুড়া শেরপুরে অবৈধভাবে পুকুর খনন করে রাস্তার পাশে মাটি স্তুপ করে বিক্রি

অব্দুর রাজ্জাক, বগুড়া প্রতিনিধি : বগুড়ার শেরপুর সীমাবাড়ী ইউনিয়রে সরকারি আইন অমান্য করে পুকুর খনন করে রাস্তার পার্শ্বে মাটি স্তুপ করে রেখে বিক্র করে রাস্তা চলাচলের অনুপযোগী করার অভিযোগ উঠেছে ঘাসুরিয়া গ্রামের মৃত ইছাহাক আলীর ছেলে রাশেদ আকন্দের বিরুদ্ধে।

জানাযায়, রাশেদ আকন্দ সরকারি আইন অমান্য করে পুকুর খনন করে রাস্তার পার্শ্বে মাটি স্তুপ করে রেখে বিক্র করে । মাটি পরিবহণকারী ট্রলি কাঁচা ঐ রাস্তা দিয়ে প্রতিদিন চলাচল করছে। ফলে রাস্তাটির প্রায় দুই কিলোমিটার অংশ সাধারণ মানুষের চলাচলের অযোগ্য হয়ে পরেছে। এতে জনদুর্ভোগে কয়েক গ্রামরে হাজারো মানুষ, ভ্যান চালক এবং কৃষকরাও।

এলাকাবাসী ও ভ্যান চালক এনছাফ আলী, আব্দুস সাত্তার, রকি, সাকা, সাইফুর, সাব্বির, কবিরসহ আরো অনেকে জানায়, দীর্ঘ দিন ধরে রাস্তার পাশে মাটির স্তুপ করে বিক্রি করে আসছেন রাশেদ আকন্দ নামের এক মাটি ব্যবসায়ী। মাটি কিনতে বিভিন্ন স্থান থেকে প্রতিদিন ইঞ্জিন চালিত যানবাহন আসছে এই রাস্তা দিয়ে। অতিরিক্ত মাটি বোঝাই করে যানবাহন চলাচলের জন্য রাস্তাটির প্রায় দুই কিলোমিটার অংশের বিভিন্ন স্থানে ভেঙ্গে গেছে এবং বৃষ্টির পানিতে কাঁদা সৃষ্টি হয়েছে। ফলে রাস্তাটির প্রায় দুই কিলোমিটার অংশ সাধারণ মানুষের চলাচলের অযোগ্য হয়ে পরেছে।

এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে মাটির স্তুপ অন্যত্র সরিয়ে নিতে বলা হলেও মাটি বিক্রেতারা রাশেদ আকন্দ না সরিয়ে তাদের অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে।

এ প্রসঙ্গে রাশেদ আকন্দের সঙ্গে কথা বলতে প্রতিষ্ঠানে গেলে তাকে পাওয়া যায়নি। এবং মোবাইল নং ০১৮৩৪ ৩১৮৪৩৪ এই নম্বারে যোগাযোগ করলে মোবাইল বন্ধ পাওয়া যায়।

এ বিষয়ে চেয়ারম্যান ও গ্রামবাসীর স্বাক্ষরীর একটি লিখিত অভিযোগ ইউএনও বরাবরে গত ৯ জুন দিলেও কোন সুহরা না হওয়ায় দিন দিন আইনের প্রতি শ্রদ্ধা হারিয়ে যাচ্ছে এমনটাই মনে করছেন গ্রামবাসী।

এ ব্যাপারে শেরপুর উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) জামশেদ আলাম রানা জানান, অভিযোগ পেয়েছি অতিদ্রুত তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত © ২০২০ বাঙলার জাগরণ
কারিগরি সহযোগীতায় :বাংলা থিমস| ক্রিয়েটিভ জোন আইটি