শুক্রবার, ২৫ Jun ২০২১, ০৪:২২ অপরাহ্ন

শিরোনাম
লকডাউন শেষে এখন শাটডাউন খেলা শুরু করছে সরকার : মান্না ভূমধ্যসাগরে ভাসমান ২৬৪ বাংলাদেশি উদ্ধার হাতীবান্ধায় মধ্যরাতে গোয়াল ঘরে আগুন, গরু বাঁচাতে গিয়ে ২জন অগ্নিদগ্ধ গ্রাম হচ্ছে শহর প্রাণভোমরা ডিজিটাল সেন্টার – পরীক্ষিৎ চৌধূরী সুইজারল্যান্ডে এমপি হয়ে ইতিহাস গড়লেন বাংলাদেশি নারী জেনারেল র‌্যাংক ব্যাজ পরানো হলো নতুন সেনাপ্রধানকে ‘ওভারনাইট বান্দরবান পাঠিয়ে দেব’ বিজ্ঞাপন বন্ধের নির্দেশ করোনা চিকিৎসার ব্যবস্থাপনা ও প্রস্তুতি জানতে ঢাকা মেডিকেলে জাসদ নেতৃবৃন্দ ব্যাটারি চালিত রিক্সা-ভ্যান বন্ধের প্রতিবাদে সিরাজগঞ্জে মানববন্ধন যোগচর্চার উৎপত্তি ভারত না নেপাল

ইউরোপে ফের বাড়ছে করোনার সংক্রমণ

নিউজ ডেস্ক : ইউরোপের কয়েকটি দেশে আবারও করোনার সংক্রমণ বাড়ার লক্ষণ দেখা যাচ্ছে। বিধি নিষেধ শিথিলের পর এই প্রথমবারের মতো সাপ্তাহিক সংক্রমণের হার বেশি বলে জানিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)। খবর বিবিসির। ইউরোপের বেশ কিছু দেশ প্রথম দফা সংক্রমণে বেশ বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছিল। টানা লকডাউনে সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে আসার পর গত মাসে বিধি নিষেধ শিথিল করে ইউরোপের দেশগুলো। এরপর পুনরায় সংক্রমণ বৃদ্ধির খবর এলো।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার আঞ্চলিক পরিচালক ডা. হান্স হেনলি ক্লুগ বলেন, ১১টি স্থানে অত্যন্ত সুস্পষ্টভাবে সংক্রমণ বেড়েছে। এর মধ্যে আর্মেনিয়া, সুইডেন, মোলদোভা ও উত্তর মেসিডোনিয়া রয়েছে। হান্স বলেন, ঝুঁকি এখন বাস্তবে রূপ নিয়েছে। এখনই সতর্ক না হলে স্বাস্থ্য ব্যবস্থা ভেঙে পড়বে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা জানিয়েছে, ইউরোপের দেশগুলোয় এ পর্যন্ত ২৬ লাখের বেশি লোক সংক্রমিত হয়েছে এবং মৃত্যুবরণ করেছে ১ লাখ ৯৫ হাজার মানুষ। এটি মধ্যপ্রাচ্য বা মধ্যএশিয়ার ৫৪টি দেশের তুলনায় বেশি।

এর মধ্যে নতুন করে প্রায় ২০ হাজার লোক ইউরোপে সংক্রমিত হয়েছে এবং প্রতিদিন প্রায় সাতশর বেশি লোক মারা যাচ্ছে। ডা. ক্লুগ জানান ইউরোপের বেশ কয়েকটি দেশে ঝুঁকি সুস্পষ্ট। এর মধ্যে ৩০টি দেশে গত দুই সপ্তাহে সংক্রমণের হার বেড়েছে। এ ছাড়া অন্তত ১১টি দেশে এই হার খুবই স্পষ্ট, যা আবারও স্বাস্থ্য ব্যবস্থাকে হুমকির মুখে ফেলে দেবে। গত কয়েক সপ্তাহে ইউরোপজুড়ে দেশগুলোতে ব্যাপক আকারে কয়েকটি গুচ্ছ সংক্রমণ ধরা পড়েছে। এর মধ্যে আছে জার্মানির নর্থরাইন ভেস্টফেলিয়া রাজ্যের একটি শহরের মাংস প্রক্রিয়াকরণ কারখানা থেকে ১৫শরও বেশি কর্মীর ভাইরাস সংক্রমিত হওয়ার ঘটনা।

যুক্তরাজ্যের ওয়েলস এবং ইংল্যান্ডের মাংস প্রক্রিয়াকরণ কারখানা থেকেও গত সপ্তাহে ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব ঘটেছে। ফ্রান্সেও ঘটেছে একই ঘটনা। ইউরোপের সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত হয়েছে যুক্তরাজ্যে। দেশটি সম্প্রতি বিধি নিষেধ আরও শিথিল করেছে। এ ছাড়া সংক্রমণ ও মৃত্যুর শীর্ষ পর্যায়ে রয়েছে স্পেন ও ইতালি। এই দেশ দুটিও গত মাসে বিধি নিষেধ তুলে নিয়েছে। গত সপ্তাহে স্পেন পর্যটকদের জন্য দরজা খুলে দিয়েছে। স্পেনের বার্ষিক আয়ের একটি বড় অংশ আসে এই পর্যটন থেকে। অর্থনীতির চাকা চালু রাখতে বিধি নিষেধ শিথিল করছে, কিন্তু অন্যদিকে করোনা আবারও চোখ রাঙাচ্ছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত © ২০২০ বাঙলার জাগরণ
কারিগরি সহযোগীতায় :বাংলা থিমস| ক্রিয়েটিভ জোন আইটি