শুক্রবার, ১৯ অগাস্ট ২০২২, ০৪:৩৭ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম
গাজীপুর প্রেসক্লাবে মাসুদুল হক সভাপতি, মাহতাব সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত রেল লাইনে পাথর নেই, মারাত্নক ঝুকি নিয়ে চলাচল করছে ট্রেন ২০০৫ সালের ১৭ আগস্ট সিরিজ বোমা হামলার প্রতিবাদে বিহ্মোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয় দেশে পরিবেশ বান্ধব কৃষি ও শিল্প প্রতিষ্ঠান স্থাপনের আহবান বোপমা সভাপতির হাতীবান্ধায় প্রতিবন্ধী কিশোরীকে ধর্ষণ মামলার মূল আসামী শাহিন গ্রেফতার সিরিজ বোমা হামলার প্রতিবাদে বরিশালে আ.লীগের বিক্ষোভ মিছিল খেলাপি বৃদ্ধির শীর্ষে ২০ ব্যাংক বিমানবন্দরে ভক্তদের উদ্দেশ্যে যা বললেন শাকিব খান বরিশাল শেবাচিমে অধ্যক্ষের কার্যালয় ঘেরাও করে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ তেলের দাম বাড়ায় ব্যবসায়ীরা সুযোগ নিচ্ছেন: বাণিজ্যমন্ত্রী

সালমার অসাধারণ বোলিংয়ে চ্যাম্পিয়ন ট্রেইলব্লেজার্স

নিউজ ডেস্ক :: নারী আইপিএল খ্যাত উইমেন্স টি-টোয়েন্টি চ্যালেঞ্জে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে ট্রেইলব্লেজার্স। এমন জয়ে বল হাতে আলো ছড়ালেন বাংলাদেশের টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক সালমা খাতুন। অভিষেক মৌসুমেই প্রতিপক্ষ অধিনায়ক হারমানপ্রিত কাউরসহ দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৩ উইকেট শিকার করেছেন সালমা।

সোমবার শারজাহ ইন্টারন্যাশনাল স্টেডিয়ামে আগে ব্যাট করে ৮ উইকেট হারিয়ে ১১৮ রান করেছিল ট্রেইলব্লেজার্স। সর্বোচ্চ ৫ চার ও ৩ ছক্কায় ৬৮ রান করেন অধিনায়ক স্মৃতি মান্ধানা। সালমার দুর্দান্ত বোলিংয়ে ১০২ রানে থামে সুপারনোভাসের ইনিংস। সেই সুবাদে ১৬ রানের সহজ জয় পায় ট্রেইলব্লেজার্স।

১১৯ রান তাড়া করতে সুপারনোভাস নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারাতে থাকে। সালতা খাতুন, ঝুলন গোস্বামী, দীপ্তি শর্মার নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে শেষ পর্যন্ত ম্যাচ জিতে নেয় ট্রেলব্লেজার্স। সুপারনোভাসের হয়ে অধিনায়ক হারমানপ্রীত কৌর ৩৬ বলে ৩০ রান করেন।

ইনিংসের ১৫তম ওভারে সালমার ওভারে প্যাডেল সুইপ করতে গিয়ে ফাইন লেগে ঝুলন গোস্বামীর হাতে ধরা পড়েন ১৯ রান করা শশীকলা। আর ১৯তম ওভারে সর্বোচ্চ ৩০ রান করা হারমানপ্রিতকে বোল্ড করে ফেরান সালমা। এক বল পরই তুলে নেন পূজাকে। এর আগে রান আউট করেন অঞ্জু পাটিলকে।

সালমা খাতুন ৪ ওভার বল করে ১৮ রান খরচায় ৩ উইকেট নেন। সালমার পাশাপাশি ৯ রান দিয়ে ২ উইকেট নেন দীপ্তি শর্মা। তাতে ৭ উইকেটে ১০২ রানের বেশি করতে পারেনি সুপারনোভাস।

এর আগে অধিনায়ক স্মৃতি মান্ধানার ঝড়ো হাফসেঞ্চুরিতে ভর করেই নির্ধারিত ২০ ওভার শেষে ৮ উইকেটে ১১৮ রান তুলতে পেরেছে ট্রেইলব্লেজার্স। ওপেনিংয়ে নেমে ৪৯ বলে ৫ বাউন্ডারি আর ১ ছক্কায় তিনি করেন ৬৮ রান। এছাড়া দেয়ান্দ্রো ডটিন ৩২ বলে ২০ এবং রিচা ঘোষ ১৬ বলে করেন ১০ রান।

প্রথম তিন ব্যাটসম্যানের পর আর কেউ দুই অংক ছুঁতে পারেননি। রাধা যাদব মাত্র ১৬ রান খরচায় নেন ৫টি উইকেট। এছাড়া পুনম যাদব আর সিরিবর্ধনে নেন ১টি করে উইকেট।

তিন দলের এই আসরে সালমা তার দলের হয়ে ফাইনালসহ তিনটি ম্যাচই খেলেছেন। কোনো ম্যাচেই তিনি ব্যাট করার সুযোগ পাননি। তবে বল হাতে ছিলেন উজ্জ্বল। লিগ পর্বে নিজেদের প্রথম ম্যাচে ভেলোসিটির বিপক্ষে ২ ওভার বল করে উইকেট না পেলেও মাত্র ৪ রান খরচ করেন। সুপারনোভাসের বিপক্ষে পরের ম্যাচে ৪ ওভার বল করে ২৫ রান খরচায় নেন ১ উইকেট।

আসরে বাংলাদেশ থেকে সালমা ছাড়াও খেলেছেন জাহানারা আলম। তার দল ভেলোসিটি ফাইনালে উঠতে ব্যর্থ হয়।

নিউজটি শেয়ার করুন

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত © ২০২০ বাঙলার জাগরণ
কারিগরি সহযোগীতায় :বাংলা থিমস| ক্রিয়েটিভ জোন আইটি