বৃহস্পতিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২১, ০২:৪৮ পূর্বাহ্ন

পেঁয়াজের দাম না পাওয়ার শঙ্কায় কৃষক

নিউজ ডেস্ক :: ঠাকুরগাঁওয়ের বাজারে দেশি পেঁয়াজের সরবরাহ বেড়েছে। কিন্তু আমদানি করা পেঁয়াজের কারণে ভালো দাম পাচ্ছেন না কৃষক। কৃষি বিভাগ বলছে, উন্নত বীজ সরবরাহ ও ন্যায্য দামের নিশ্চয়তা থাকলে বাড়বে পেঁয়াজের আবাদ, আমদানি নির্ভরতা কমে বাজারও হবে স্থিতিশীল।

পেঁয়াজ চাষ করে প্রায় মৌসুমে লোকসান গুণতে হয় চাষীদের। যে সময়ে ক্ষেত থেকে পেঁয়াজ উঠানো শুরু হয় তখনও আমদানি হয়। ফলে পড়ে যায় বাজার দর।

এ অবস্থায় অনেকেই পেঁয়াজ চাষ থেকে মুখ ফিরিয়ে নেন। কিন্তু গত বছরের লাগামহীন বাজার তাদের আবারও উদ্বুদ্ধ করে পেঁয়াজ চাষে। আমদানি করা পেঁয়াজের সাথে দামে টিকতে না পেরে এবারও লোকসানের আশঙ্কা চাষীদের।

চাষীরা জানান, আমাদের পোষাবে কিভাবে- যখন আমাদের পেঁয়াজ উঠে, তখন বিদেশ থেকেও নিয়ে আসা হয়। আবাদ করতে অনেক টাকা-পয়সা লাগে। যখন পেঁয়াজ ওঠানো হয় তখন দাম যায় কমে।

কৃষকদের দাবি, দামের নিশ্চয়তা আর আবাদে প্রণোদনার।

পেঁয়াজ চাষীরা বলেন, পেঁয়াজ রাখার জন্য যদি সরকার ব্যবস্থা করতো তাহলে আমাদের উপকার হতো।

কৃষকদের দাবির সাথে একমত কৃষি বিভাগও।

ঠাকুরগাঁও কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক আফতাফ হোসেন বলেন, পেঁয়াজের সংরক্ষণ এবং বীজের সহজ লভ্যতা, বিভিন্ন দিক যদি আলোকপাত করতে পারি তাহলে আমরা আরও সুফল পাবো বলে আশা করি।

চলতি মৌসুমে ১৩৬ হেক্টর জমিতে পেঁয়াজের আবাদ হয়েছে। উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা ৩ হাজার টন।

নিউজটি শেয়ার করুন

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত © ২০২০ বাঙলার জাগরণ
কারিগরি সহযোগীতায় :বাংলা থিমস| ক্রিয়েটিভ জোন আইটি