সোমবার, ২৯ নভেম্বর ২০২১, ০৮:০১ অপরাহ্ন

র‌্যাবের জিজ্ঞাসাবাদে যা বললেন নোবেল

বিতর্ক তার পিছু ছাড়ছে না। ‘সারেগামাপা’ খ্যাত বাংলাদেশি গায়ক মাইনুল আহসান নোবেল আবারও আলোচনায়। কখনও নিজের ঢাক পেটানো, কখনো কিংবদন্তি শিল্পীদের নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য করা, আবার কখনও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে বেলাগাম ভাষায় ফেসবুকে আক্রমণ। কথাবার্তায় যেন লাগাম নেই নোবেলের। সম্প্রতি তাহসিন এন রাকিব নামের একজন ইউটিউবারের সঙ্গেও বিস্তর কথা কাটাকাটি হয় গোপালগঞ্জের ছেলে নোবেলের। বেশ কিছু অশালীন শব্দও প্রয়োগ করার অভিযোগ ওঠে এই গায়কের বিরুদ্ধে। তার জেরেই গত বছরের ‘সারেগামাপা’ রিয়ালিটি শোর দ্বিতীয় রানার্সআপ নোবেলকে ডেকে পাঠিয়েছিল র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ান (র‌্যাব)।

পাশাপাশিই কিছু দিন ধরে তাকে পর্যবেক্ষণ করছিল পুলিশের কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিট। সম্প্রতি র‌্যাব ২-এর কার্যালয়ে ডেকে নোবেলকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। সোশ্যাল মিডিয়ায় এমনতর কাণ্ড তিনি কেন ঘটান? এই প্রশ্নের জবাবে প্রথমেই ক্ষমা চেয়ে নেন নোবেল।

এরপর জানান, ‘এই সবই আসলে একটি গানের ‘মার্কেটিং পলিসি’।

দীর্ঘক্ষণ নোবেলের সঙ্গে এসব বিষয়ে আলোচনার পর র‌্যাবে অ্যাডিশনাল এসপি মনির জামান বলেন, ‘আমাদের দেশের তো বটেই, ভারতেও একজন জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী নোবেল। তিনি নিজস্ব ফেসবুক পেজ Noble Man থেকে সম্প্রতি যা বলেছেন, তা আসলে তার নতুন গান ‘তামাশা’কে প্রোমোট করার জন্য। কারও ভাবাবেগে আঘাত করা তার উদ্দেশ্য ছিল না।’

তিনি বলেন, ‘এর পরেও যদি কেউ নোবেলের কথায় দুঃখ পেয়ে থাকেন, তার জন্য ক্ষমা চেয়েছেন। আমাদের কাছে ঠিক এই কথাই বলেছেন নোবেল। আমরা র‌্যাব ২-এর পক্ষ থেকে তাকে ডেকেছিলাম। একবার ডাকতেই স্বেচ্ছায় আমাদের কাছে তিনি তার বক্তব্য তুলে ধরেছেন। আমরা তাকে সতর্ক করে দিয়েছি।’

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে নিয়ে অশালীন মন্তব্য করার জন্যও ফেসবুকে ক্ষমা চেয়েছেন নোবেল। এমনকী র‌্যাব-এর পক্ষ থেকে যে তাকে ডেকে পাঠানো হয়েছিল, কী বৃত্তান্ত- এসব কিছুই ফেসবুক পোস্টে খোলসা করেছেন গায়ক।

তবে সোশ্যাল মাধ্যমে অনেকেই বলছেন, ‘এটা কখনোই মার্কেটিং পলিসি নয়। এই ধরনের কাজকর্ম আসলে নোবেলের স্বভাবসিদ্ধ।’

নিউজটি শেয়ার করুন

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত © ২০২০ বাঙলার জাগরণ
কারিগরি সহযোগীতায় :বাংলা থিমস| ক্রিয়েটিভ জোন আইটি