সোমবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২২, ০৯:২১ অপরাহ্ন

সুন্দরগঞ্জে মায়ের অভিযোগের প্রতিবাদে মেয়ের সংবাদ সম্মেলন

সুন্দরগঞ্জ (গাইবান্ধা) প্রতিনিধি :: গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার বামনডাঙ্গা ইউনিয়নের জহুরুলহাট হাজী এলাহী উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেনির ছাত্রী মনিষা আক্তারকে গুম ও অপরহণের মিথ্যা অভিযোগের বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন করেন মনিষা আক্তার। মায়ের অনুমতি নিয়ে প্রেমিক ফুফাতো ভাই কে বিয়ে করে আত্মগোপনে রয়েছে তারা।

মনিষা দেওডোবা গ্রামের প্রবাসি মকবুল হোসেনের কন্যা। গত ২০/১০/২০২২ইং তারিখে মনিষার মা চামেলী বেগম আদালতে দায়ের করা মামলা (সি.আর.নং-৫০০/২০২২) ভিত্তিহীন দাবি করে গতকাল সোমবার উপজেলা প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে করেছে মনিষা। সংবাদ সম্মেলনে মনিষা আক্তার জানান, দীর্ঘদিন হতে তাদের মধ্যে প্রেম ভালবাসা চলে আসছিল এবিষয় আমার বাড়ীতে জানাজানি হলে ।

এক পর্যায় গত ১০ আগষ্ট মায়ের অনুমতি সাপেক্ষে মনিষা তার প্রেমিক ফুফাতো ভাইয়ে সাথে পালিয়ে গিয়ে আদালতে এফিডেভিটের মাধ্যমে বিয়ে করি। এনিয়ে আমার মা চামেলীর বেগম থানায় অভিযোগ করলে পরবর্তীতে উভয় পরিবারের সদস্যদের মতামতের ভিত্তিতে আমার মা লিখিত অভিযোগটি প্রত্যাহার করে নেয় ।

এরই মধ্যে আমার মা চামেলী বেগম আমার অজান্তে অন্য ছেলের সাথে বিয়ে ঠিক করেন। বিয়ের বিষয়টি জান্তে পেরে আমি আমার ফুফাতো ভাইয়ের সাথে আবার পালিয়ে আসি। আমার মা পরিবারের চাপের মুখে গত ২০ অক্টোম্বর আদালতে মামলা করে। বিজ্ঞ বিচারক মামলটি তদন্তের জন্য গাইবান্ধা ডিটি পুলিশকে দায়িত্ব দিয়েছে। মনিষা আরও বলেন বর্তমানে তারা ভাল আছেন। মামলার কারনে তারা আত্মগোপনে রয়েছেন। এবিষয়ে চামেলী বেগম বলেন তার স্বামী বর্তমানে দেশের বাহিরে রয়েছে। সে কারণে পরিবারের সদস্যদের পরামর্শক্রমে আদালতে মামলা করেছে।

বামনডাঙ্গা তদন্ত কেন্দ্রের পুলিশ পরিদর্শক শফিকুজ্জামান সরকার জানান, এনিয়ে মনিষার মা থানায় অভিযোগ করেছিল। পরবর্তীতে পারিবারিক ভাবে মিমাংসা হওয়ার পর অভিযোগটি প্রত্যাহার করে নেয় মনিষার মা। মনিষা গুম বা অপহরণের বিষয়টি সঠিক নয়।

নিউজটি শেয়ার করুন

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত © ২০২০ বাঙলার জাগরণ
কারিগরি সহযোগীতায় :বাংলা থিমস| ক্রিয়েটিভ জোন আইটি