সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ১০:২৭ অপরাহ্ন

শিরোনাম
ক্রীড়াবিদরা দেশের জন্য সম্মান বয়ে আনছে- ধর্মমন্ত্রী উজিরপুরে সৎসঙ্গ ফাউন্ডেশনের সেমিনার অনুষ্ঠিত শিবালয়ে গ্রাম-বাংলার ঐতিহ্যবাহী লাঠিবাড়ি খেলা অনুষ্ঠিত লঞ্চের দড়ি ছিঁড়ে ৫ জনের মৃত্যু : আসামিদের তিন দিনের রিমান্ড ঈদের দিনে সদরঘাটে দুর্ঘটনায় ঝরল ৫ প্রাণ সৌদির সাথে মিল রেখে নোয়াখালীর ৪ গ্রামে ঈদ উদযাপন নোয়াখালীতে দুর্বৃত্তরা ঘর আগুনে পুড়ে দিয়েছে, ১০ লক্ষ টাকার ক্ষয়ক্ষতি সুবর্ণচরে মানব কল্যাণ সংস্থার উদ্যোগে হতদরিদ্র ও অসহায়দের মাঝে ঈদ সামগ্রী বিতরণ  ঢাকা আরিচা মহাসড়কের মসুরিয়ায় নামে এক অজ্ঞাত ব্যাক্তি সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত চাটখিলে ইউপি চেয়ারম্যান ও মেম্বারদের মাঝে ঈদ উপহার বিতরণ

সুন্দরগঞ্জে বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের সহযোগী অধ্যাপকে মারপিটের অভিযোগ

শহীদুল ইসলাম শহীদ, সুুন্দরগঞ্জ (গাইবান্ধা) প্রতিনিধি : গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার তারাপুর ইউনিয়নের তারাপুর গ্রামে আতিকুর রহমান, সাদ্দাম হোসেন, লিটন মিয়া ও জয়ন্ত কুমার মুলা সহ অজ্ঞাতনাম কয়েকজন মিলে সঞ্জয় কুমার সরকারকে মারপিটের অভিযোগ উঠেছে। সঞ্জয় কুমার সরকার বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের সহযোগী অধ্যাপক।

অভিযোগ সূত্রে জানান যায়, উপজেলার তারাপুর ইউনিয়নের তারাপুর গ্রামের মৃত অধিত চন্দ্র সরকারের ছেলে বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের সহযোগী অধ্যাপক সঞ্জয় কুমার সরকার। অধ্যাপক সঞ্জয় কুমার সরকার এর সাথে বসতবাড়ির যাতাযাতের রাস্তা নিয়ে দীর্ঘদিন থেকে পারিবারিকভাবে বিরোধ চলে আসছিল। এরই জের ধরে গত রোববার যাতাযাতের রাস্তার মাটি কেটে জমিতে দেয়ায় বাঁধা প্রদান করলে বিবাদীগণ তাকে গালিগালাজ সহ বিভিন্ন হুমকি ও ভয়ভীতি প্রদর্শন করেন। এরপর বিকেলে সঞ্জয় কুমার সরকারের বসতবাড়িতে বিবাদীগণ পূনরায় এসে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করতে থাকেন।

এসময় তাদের গালিগালাজ করতে নিষেধ করলে বিবাদীগণ ক্ষিপ্ত হয়ে তাঁকে ধাক্কা দিয়ে মাটিতে ফেলে দিয়ে মারপিট শুরু করেন। স্থানীয় লোকজন ছুটে এসে তাকে উদ্ধার করলে বিবাদীগণ ঘটনাস্থল ত্যাগ করে চলে যান। গত মঙ্গলবার সঞ্জয় কুমার সরকার নিরুপায় হয়ে সুন্দরগঞ্জ থানায় লিখিত অভিযোগ করেন। অভিযুক্তরা হলেন, তারাপুর গ্রামের তোফাজ্জল হোসেন ছেলে আতিকুর রহমান, আইয়ুব আলী ছেলে সাদ্দাম হোসেন, আনছার আলী ছেলে লিটন মিয়া ও নির্মল চন্দ্রের ছেলে জয়ন্ত কুমার মুলার বিরুদ্ধে মারপিটের অভিযোগ করেন।

বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের সহযোগী অধ্যাপক সঞ্জয় কুমার সরকার জানান, পূর্ব পরিকল্পিতভাবে তারা আমাকে মারার জন্য আমার বসত বাড়িতে এসে গালাগালি ও মারপিট করেন এবং আমাকে হত্যা করার উদ্দেশ্যে দেশীয় অস্ত্র দেখিয়ে হুমকি প্রদান করেন। সুন্দরগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ কে এম আজমিরুজ্জামান জানান, মারপিটের বিষয়ে আমরা একটি লিখিত অভিযোগ পেয়ে তাৎক্ষণিক ভাবে তদন্ত শুরু করেছি। ঘটনার সত্যতা সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।


© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত © ২০২০ বাঙলার জাগরণ
কারিগরি সহযোগিতায়: