মঙ্গলবার, ১৮ জানুয়ারী ২০২২, ০২:১১ অপরাহ্ন

ইয়ানমার এর “সার্ভিস ভ্যান” উদ্বোধন

নিউজ ডেস্ক :: ২০২০ সালের বোরো মৌসুমে করোনার কঠিন বিপর্যয়ের সময় ৭৫০ এর বেশি ইয়ানমার কম্বাইন হারভেস্টার সরবরাহ করে বাংলাদেশের কৃষি ক্ষেত্রে এক বিপ্লব সৃষ্টি করেছে এসিআই মটরস্। কম্বাইন হারভেস্টারের ক্ষেত্রে বিক্রয়োত্তর সেবা একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় এবং এসিআই মটরস্ এ বিষয়টি অত্যন্ত নিষ্ঠার সাথে পালন করে আসছে। আসছে মৌসুমের গম ও বোরো ধান কাঁটার কাজ আরও সহজ করতে এসিআই মটরস্ ২টি বিশেষ সার্ভিস ভ্যান সংযুক্ত করতে যাচ্ছে।

গত ০৪ ফেব্রুয়ারী ২০২১ ইং তারিখে এসিআই মটরস্ এর প্রধান কার্যালয়, এসিআই সেন্টার, তেজগাঁও তে ইয়ানমার সার্ভিস ভ্যানের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন এসিআই মটরস্ এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ডঃ ফা হ আনসারী, নির্বাহী পরিচালক সুব্রত রঞ্জন দাস ও এসিআই মটরস্ এর অন্যান্য ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ। এই সার্ভিস ভ্যান ২টি, গম ও ধান কাঁটার মৌসুমে এক জেলা হতে অন্য জেলায় যাবে এবং হারভেস্টার ক্রেতাদের “অন দ্যা স্পট” সার্ভিস দিবে। সার্ভিস ভ্যান ২টি তে হারভেস্টারের প্রয়োজনীয় স্পেয়ার পার্টস মজুদ থাকবে। প্রতিটি ভ্যান সঠিকভাবে পরিচালনা ও কাস্টমার সার্ভিস নিশ্চিত করার জন্য একজন দক্ষ টেকনিশিয়ান সবসময় ভ্যানের সাথে থাকবে।

বাংলাদেশের জমি ও ফসল উপযোগী অত্যাধুনিক সেন্সর বিশিষ্ট ইয়ানমার কম্বাইন হারভেস্টার দ্বারা কাঁদা ও শুয়ে পড়া জমির ধান/গম কাটা, মাড়াই, ঝাড়াই ও বস্তাবন্দী করা যায়, ১ একর জমির ধান/গম কাটতে সময় লাগে মাত্র ১ ঘণ্টা, এবং প্রতি একরে জ্বালানী খরচ হয় মাত্র ৭-৮ লিটার ডিজেল। প্রতি একরে খরচ বাদে লাভ হয় ৩,৫০০-৪,০০০ টাকা। এতে খরচ বাঁচে ৬১% ও শ্রম বাঁচে ৭০%। এই হারভেস্টার দ্বারা দিনে প্রায় ৮ একর জমির ধান কাঁটা যায়। ইয়ানমার মেশিন ব্যবহারে স্বনির্ভর হতে পারেন একজন উদ্যোক্তা। বরাবরের মত এই মৌসুমেও সরকারী ভর্তুকিতেও এই মেশিন পাওয়া যাবে।

এসিআই মটরস্ সারা দেশ ব্যাপী তার দক্ষ নেটওয়ার্ক ও লোকবল এর মাধ্যমে বিক্রয়োত্তর সেবা নিশ্চিত করছে। আশা করা যায়, অত্যাধুনিক প্রযুক্তির এই ইয়ানমার সার্ভিস ভ্যান ব্যবহার করে হারভেস্টার মালিকরা উপকৃত হবে।

আরকে//

নিউজটি শেয়ার করুন

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত © ২০২০ বাঙলার জাগরণ
কারিগরি সহযোগীতায় :বাংলা থিমস| ক্রিয়েটিভ জোন আইটি