রবিবার, ০৯ মে ২০২১, ০৭:৩৪ পূর্বাহ্ন

কথিত ধর্ষণ মামলায় ৪ শিশু আসামীকে জামিন দিলেন আদালত

বরিশাল প্রতিনিধি :: বরিশালের বাখেরগঞ্জ থানাধীন ধর্ষণের কথিত অভিযোগে ৪ শিশু কে গ্রেফতার করে বরিশাল সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজির করার মাধ্যমে বিচারক মোঃ এনায়েত উল­াহ ৪ শিশু আসামীর জামিন বাতিল করে যশোর শিশু উন্নয়ন ও সংশোধন কেন্দ্রে পাঠিয়ে দেয়ার ঘটনায় বরিশাল সহ বিভিন্ন মহলে মিশ্র প্রতিক্রিয়া এবং জণমনে নানা ক্ষোভের সৃষ্টি হওয়ার প্রায় ৩০ ঘন্টা পর বৃহস্পতিবার রাত ১০ টায় আদালত বসিয়ে জামিন দিয়েছে শিশু আদালত।

কথিত দায়ের করা ধর্ষণ মামলায় শিশুদেরকে ম্যাজিস্ট্রেট আদালত জামিন বাতিল করে উন্নয়ন কেন্দ্রে পাঠানোর আদেশ দেন।

আদালতের আদেশকে চ্যালেঞ্জ করে পুনরায় বিবেচনা করে জামিনের প্রার্থনা করা হলে ৮ অক্টোবর বৃহস্পতিবার রাত ১০টায় বিশেষ আইন বিভাগের ক্ষমতাবলে জেলা জজ আদালত কথিত ধর্ষণ মামলায় উন্নয়ন কেন্দ্রে পাঠানো ৪ শিশু আসামীর জামিন মঞ্জুর করেন বরিশাল নারী ও শিশু নির্যাতন ট্রাইব্যুনালের বিচারক (জেলা জজ মর্যদা) আবু শামীম আজাদ।

আদালত সূত্র জানায় জামিন প্রাপ্ত শিশুরা হচ্ছেন বরিশাল জেলার বাখেরঞ্জ উপজেলার রঙ্গশ্রী ইউনিয়নের রুনসী গ্রামের বেল­াল বয়াতীর ছেলে সাইদুল ইসলাম (১১), সালাম হাওলাদারের ছেলে সোলাইমান ইসলাম তামিম (১০), বাবুল সিকদারের ছেলে হাফিজুল ইসলাম লাবিব (১০) ও শাহীন হাওলাদারের ছেলে শাওন হাওলাদার (১০)।

এদের বিরুদ্ধে ৬অক্টোবর মঙ্গলবার বাখেরগঞ্জ থানায় প্রতিবেশী জাহিদুর রহমান রুবেল বাদী হয়ে তার (৬) বছরের কণ্যা শিমুকে উক্ত চার শিশু ধর্ষণ করেছে বলে অভিযোগ এনে থানায় একটি ধর্ষন মামলা দায়ের করেন।

থানা পুলিশ মামলাটি গ্রহন করে আসামীদের বয়স কোন প্রকার বিবেচনা ও ঘটনার তদন্ত ছাড়াই শিশুদেরকে বাড়ি থেকে গ্রেফতার করে তাৎক্ষনিক পুলিশ বিভাগের মুখ উজ্জল করে বাখেরগঞ্জ থানা পুলিশ।

৭ অক্টোবর বুধবার বাখেরগঞ্জ থানা পুলিশ শিশুদেরকে বরিশাল আদালতে সোপর্দ করা হয। পরবর্তী সময়ে মামলায় দেখানো পুলিশ কর্তৃক ১০/ ১১ বয়সের ৪ শিশুকে জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট এনায়েত উল­াহ আদালতের কাঠগড়ায় হাজির করা হলে বিজ্ঞ বিচারক এনায়েত উল­াহ শিশু আসামীদের জামিনের আবেদন খারিজ করে যশোর শিশু-কিশোর উন্নয়ন কেন্দ্রে পাঠানোর আদেশ দেন।

আদেশের পরপরই পুলিশ শিশুদেরকে যশোরে নিয়ে যাবার লক্ষ্যে আদালত থেকে নামিয়ে প্রিজন ভ্যানে উঠাবার সময় উক্ত ৪ শিশু মাগো-বাবাগো আমরা কিছুই করি নাই বলে আত্ব চিৎকারে আদালত পাড়া তোলপাড় করে তোলার সময় এক হৃদয় বিদারকের সৃষ্টি হয়।

এসময় আদালত পাড়া এলাকায় সাধারন মানুষ ও আইনজীবীরা হতবাক হয়ে বিভিন্ন বিরুপ ক্ষোভ প্রকাশ করে মন্তব্য করেন তারা।

এঘটনায় শিশুদের পক্ষে বৃহস্পতিবার এ্যাড, জসিম উদ্দিন রাত ১০টায় শিশু আদালতে জামিনের আবেদন করেন। আদালত তাৎক্ষনিক শুনানী করে শিশুদের জামিন মঞ্জুর করেন এবং জরুরী ভিত্তিতে তাদের মুক্তি দেয়ার জন্য যশোর উন্নয়ন কেন্দ্রের কর্তৃপক্ষের কাছে কাগজ-পত্র পাঠিয়ে দেয়া হয়।

উল্লেখ্য বাখেরগঞ্জের রঙ্গশ্রী ইউনিয়নের রুনসী গ্রামে অনুসন্ধানে জানা যায় থানায় শিশুদের বিরুদ্ধে দায়ের করা ধর্ষণ মামলার বাদী জাহিদুর রহমান রুবেল ও আসামী ৪ শিশুর বাব-চাচাদের সাথে ১৫ শতাংশ জমি নিয়ে তাদের সাথে দীঘূদিন বিরোধ চলে আসছে। এরা একে অপরের আপন চাচা-ভাতিজা হয় বলে স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান বসির উদ্দিন বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

এব্যাপারে তারা বেশ কয়েকবার শালিস-মিমাংসার চেষ্টা করেন। চেয়ারম্যান বসির উদ্দিন বলেন, থানায় যখন বর্তমান সময়ে এধরনের একটি স্পর্সকাতর মামলা গ্রহণ করা এবং আসামীদের বয়স দেখে থানা পুলিশের বিবেচনার প্রয়োজন ছিল বলে তিনি মনে করেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত © ২০২০ বাঙলার জাগরণ
কারিগরি সহযোগীতায় :বাংলা থিমস| ক্রিয়েটিভ জোন আইটি