শুক্রবার, ১৮ Jun ২০২১, ০৭:৫৫ পূর্বাহ্ন

সাকিবের পুনর্বাসনে যত আয়োজন

নিউজ ডেস্ক : সাকিব আল হাসানের শ্রীলঙ্কা সফরে ফেরা নিয়ে কিছু দিন আগেও বিপক্ষ মতের অভাব ছিল না। জাতীয় দলের প্রধান কোচ রাসেল ডমিঙ্গো বাঁহাতি এ অলরাউন্ডারকে দলে নিতে রাজি হবেন কিনা, এ নিয়েও সংশয়ে ছিলেন তিনি। তাকে নিয়ে মতদ্বৈধতা ছিল খোদ জাতীয় দল নির্বাচক প্যানেলে।

এই বিভাজন দূর করে দিয়েছেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। শনিবার সংবাদ মাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে তিনি বলেছেন, সাকিবের ফেরার অপেক্ষায় আছেন তারা। বাঁহাতি অলরাউন্ডারের ফেরা নিশ্চিত করতে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিলের (আইসিসি) নিয়মের ভেতরে থেকে পুনর্বাসনে সহযোগিতা করতেও প্রস্তুত বিসিবি। ফেরার প্রতিশ্রুতি নিয়ে এ মাসের শেষ দিকে দেশে ফিরবেন সাকিব। বিকেএসপির পর শ্রীলঙ্কাতে পুনর্বাসনের পাকা ছক করে ফেলেছেন তিনি।

বিসিবি সভাপতি জানান, সাকিবের প্রস্তুতির ওপর নজর রাখবেন তারা। ব্যক্তিগতভাবে ট্রেনার, ফিজিও দিয়েও সাপোর্ট দেওয়া কথাও বলেছেন তিনি। সেপ্টেম্বরের শুরুতে নিজের ক্রিকেট আঁতুরঘর বিকেএসপিতে কন্ডিশনিং ক্যাম্প করবেন সাকিব। ফিটনেস ফেরাতে প্রতিষ্ঠানটির সর্বোচ্চ সুযোগ-সুবিধা নিতে পারবেন তিনি। বিকেএসপির ক্রিকেট বিভাগের উপদেষ্টা কোচ নাজমুল আবেদীন ফাহিম জানান, সাকিবের ফিটনেস নিয়ে কাজ করবেন অ্যাথলেটিক্স ও জিমন্যাস্টিক্স কোচরা।

ক্রীড়া বিজ্ঞানসম্মতভাবে দ্রুত ফিটনেস পুনরুদ্ধারে দারুণ কাজে দেবে বিশেষজ্ঞদের সংস্পর্শে থাকতে পারা। ক্রিকেট স্কিল দেখার জন্য রয়েছেন ফাহিম ও মোহাম্মদ সালাউদ্দিন। পুনর্বাসন প্রক্রিয়ায় নিবিড় প্রশিক্ষণের জন্য দেশে এর চেয়ে ভালো জায়গা হতে পারে না বলে মনে করেন ফাহিম। দেশের পর্ব শেষ করে শ্রীলঙ্কায় কন্ডিশনিং ক্যাম্প করবেন নিজস্ব ব্যবস্থাপনায়।

বাংলাদেশ দল তিন টেস্টের সিরিজ খেলতে কলম্বো যাবে সেপ্টেম্বরের শেষ সপ্তাহে। অক্টোবরের প্রথম সপ্তাহে যেতে পারেন সাকিব। ১৪ দিনের কোয়ারেন্টাইনের পাশাপাশি স্কিল নিয়ে কাজ করবেন সেখানে। বিসিবির কোনো একজন কোচ ব্যক্তিগতভাবে সঙ্গ দিতে পারেন তাকে। অথবা সাকিব চাইলে ‘মেন্টর’ মোহাম্মদ সালাউদ্দিনও যেতে পারেন লঙ্কায় স্কিল ট্রেনিং করাতে। ২০১৯ সালের ওয়ানডে বিশ্বকাপের আগে ভারতে গিয়েও শিষ্যের স্কিল নিয়ে কাজ করেছেন এ ‘মেন্টর’।

কঠোর পরিশ্রম আর একাগ্রতার ফলও পেয়েছেন সাকিব। বিশ্বকাপেন অন্যতম সেরা পারফরমার হিসেবে নিজেকে নিয়ে গেছেন অন্য উচ্চতায়। জাতীয় দল নির্বাচকরা আশায় আছেন, প্রত্যাবর্তনের সিরিজেও ভালো করবেন সাকিব। টাইগার প্রধান কোচ রাসেল ডমিঙ্গো মনে করেন, এক বছর ক্রিকেটের বাইরে থাকলেও অন্যদের থেকে পিছিয়ে থাকবেন না বাঁহাতি অলরাউন্ডার। দলের অন্যদের সঙ্গে এই পার্থক্য কমিয়ে দিয়েছে করোনাভাইরাসের কারণে মার্চ থেকে দেশে খেলাধুলা বন্ধ থাকায়।

তাই তো ইএসপিএন-ক্রিকইনফোকে কোচ অবলীলায় বলেছেন, সাত মাস আর এক বছর খেলার বাইরে থাকার মধ্যে কোনো তফাত দেখেন না তিনি। তবে পুনর্বাসন ও ফিটনেসের ওপর জোর দিয়েছেন কোচ। ‘ট্র্যাক রেকর্ড’ দেখলে দ্বিধা ঝেড়ে ফেলে বলা যায় নিজের নিয়মে কোচের প্রত্যাশা পূরণ করেই ফিরবেন সাকিব। এক বছরের নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ পূর্ণ করে ২৯ অক্টোবর থেকে খেলার জন্য উন্মুক্ত হবেন এ বাঁহাতি। ততদিনে সিরিজের প্রথম টেস্ট শেষ। সবকিছু ঠিক থাকলে দ্বিতীয় টেস্টে যোগ হবেন তিনি।

নিউজটি শেয়ার করুন

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত © ২০২০ বাঙলার জাগরণ
কারিগরি সহযোগীতায় :বাংলা থিমস| ক্রিয়েটিভ জোন আইটি